সংবাদ শিরোনাম
দোয়ারাবাজারে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে সংঘর্ষ, আহত ৬  » «   সিলেটের ওসমানীনগরে চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার, আটক ১  » «   দেশে আধুনিক ক্রীড়ার রূপকার ছিলেন শহীদ শেখ কামাল: প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী  » «   দক্ষিণ সুরমায় মেয়েকে ফিরে পেতে এক পিতার আকুতি  » «   বানারীপাড়ায় সাজাপ্রাপ্ত পলাতক দূর্দান্ত প্রতারক রঞ্জন গ্রেফতার  » «   দক্ষিন সুরমার সুলতানপুর-গহরপুর সড়কে দুর্ঘটনায় নিহত ৩  » «   সাংবাদিক অজয় পালের প্রতিকৃতিতে সিলেটের সর্বস্থরের নাগরিকদের শ্রদ্ধা নিবেদন  » «   ঐতিহ্যবাহী ‘মাছের মেলা’ শেরপুরে হাজারো মানুষের ঢল  » «   দক্ষিণ সুমরার বাইপাস এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় দুইজন নিহত  » «   আমাদের দেশের শিক্ষার্থীরা আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন হয়ে গড়ে উঠছে: মন্ত্রী ইমরান  » «   আওয়ামীলীগের বিদায় নিশ্চিত করে দেশে জনগণের সরকার প্রতিষ্টা করতে হবে :কাইয়ুম চৌধুরী  » «   অবকাঠামো উন্নয়ন এর মাধ্যমে দেশ গড়ার কাজ করতে হবে-প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী ইমরান আহমদ  » «   ছাতকে অধ্যক্ষ অপসারণের দাবীতে সড়ক অবরোধ করেছে ছাত্রলীগ  » «   দোয়ারাবাজারে বিজিবি’র অভিযানে চৌদ্দ লক্ষ টাকা উদ্ধার  » «   দোয়ারাবাজারে চিলাই নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন! ২টিড্রেজার মেশিনসহ বালু জব্দ  » «  

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে কুলিয়ারচর

5সিলেটপোস্ট রিপোর্ট :‘বাংলাদেশে মাছ ভোক্তা লেভেলে মানসম্মতভাবে পৌছানোর জন্য প্রসেসিং ও প্যাকেজিংয়ে বায়োসিকিউরিটি এত পুঙ্খানুপুঙ্খরুপে মানা হয় তা চোখে না দেখলে বিশ্বাস করা যেত না । একজন মৎস্যবিদ হয়ে মাছ উৎপাদন ও স্বাস্থ্যসম্মতভাবে ভোক্তাদের মধ্যে পৌঁছাতে অবদান রাখতে পারবো ভেবেই ভালো লাগছে।’ এভাবেই বললেন সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিসারিজ অনুষদের শিক্ষার্থী ছাদেকুল আমান ভূঁইয়া। সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিসারিজ অনুষদ ৬ষ্ট ব্যাচের শিক্ষার্থীরা এ মাসের শুরুতে কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে শিক্ষাসফরে যায়। শিক্ষার্থীদের তাত্ত্বিক জ্ঞানের পাশাপাশি হাতে কলমে দক্ষ করতেই এ শিক্ষাসফরের আয়োজন করা হয়।ফিসারিজ অনুষদ ৬ষ্ট ব্যাচের ৬৯ জন শিক্ষার্থী এতে অংশগ্রহন করে। সফরের ব্যবস্থাপনা ও নির্দেশনায় ছিলেন ফিসারিজ টেকনোলজি এন্ড কোয়ালিটি কন্ট্রোল বিভাগের শিক্ষকদের মধ্যে ড. মো. আবু সাঈদ, ড. মো. মোতাহের হোসেন ও ড. মো. আবু জাফর বেপারী।শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা কুলিয়ারচরের কোল্ড স্টোরেজ লিমিটেডে সকালের দিকে পৌঁছান। এরপর ইউনিটের নিয়মানুযায়ী বায়োসিকিউরিটি গ্রহন করে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা মূল ইউনিট ঘুরে দেখেন। এসময় শিক্ষার্থীরা মাছ প্রসেসিং, চিলিং ও প্যাকেজিংয়ের অত্যাধুনিক প্রক্রিয়াকরন পদ্ধতি দেখেন। হ্যাজার্ড এনালাইসিস এন্ড ক্রিটিক্যাল কন্ট্রোল পয়েন্ট (ঐঅঈঈচ) প্রতিটি ধাপের  বিস্তারিত কার্যপ্রণালী শিক্ষার্থীরা অবলোকন করেন। মাছের এক্সপোর্ট কোয়ালিটি নিশ্চিতকরনের বিভিন্ন দিক নিয়েও কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের সামনে তুলে ধরেন। এসময়  ডিরেক্টর মো. আলমগীরসহ ফ্রেশ ওয়াটার ইউনিটের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। ট্যুরের অভিজ্ঞতা শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে কতটুকু কার্যকর এ বিষয়ে  ফিসারিজ টেকনোলজি এন্ড কোয়ালিটি কন্ট্রোল বিভাগের শিক্ষক ড. মো. মোতাহের হোসেন বলেন, ‘এই সফরের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের তত্ত্বীয় জ্ঞানের পূর্ণতা পেল। একজন দক্ষ মৎস্যবিদ হওয়ার জন্য মাছের কোয়ালিটি কন্ট্রোল ও নিত্যনতুন টেকনোলজি ব্যবহারের বিভিন্ন দিক সম্পর্কে সম্যক ধারনা দিতে এ সফর কার্যকর ভূমিকা পালন করবে বলে।’

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.