সংবাদ শিরোনাম
সাংবাদিক মীর্জা সোহেলের মায়ের মৃত্যুতে সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের শোক  » «   তাহিরপুরে চোরাই পথে কয়লা সংগ্রহ করতে গিয়ে শ্রমিকের মৃত্যু !  » «   ছাতকে রাস্তার ঢালাই কাজে নিম্নমানের কংক্রিট ও বালু ব্যবহারে অনিয়মের অভিযোগ  » «   সুদখোর ও জুয়াড়ী গুলজার বাহিনীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ নবীগঞ্জের তিমিরপুর গ্রামবাসী  » «   লিবিয়ার থেকে মাফিয়া দালারের খপ্পরে পড়ে লাশ হয়ে ফিরতে হলো জগন্নাথপুরের এখওয়ান  » «   দোয়ারাবাজারে অনলাইনে  কোটি টাকা প্রতারণা আটক স্কুল শিক্ষক  » «   সুনামগঞ্জ কোটি টাকা আত্মসাৎ চেয়ারম্যান শেরিনকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি  » «   নবীগঞ্জে মসজিদের জুতার বক্সের ভিতরে থেকে ৩ মাসে একটি শিশু ছেলেকে পুলিশ উদ্ধার করেছে  » «   রেমিট্যান্স কেনার ডলার রেট কমল, কার্যকর ১ অক্টোবর  » «   দেয়ারাবাজারে রাতে ঘর থেকে মুখ চাপা দিয়ে এক সংখ্যালঘু স্কুল ছাত্রীকে অপরহণ   » «   শাওন হত্যার প্রতিবাদে সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ  » «   পার্কিং ট্রাকের পিছনে প্রাইভেট কারের ধাক্কা সুনামগঞ্জ -সিলেট মহাসড়কে নিহত ১ আহত ২  » «   জামালগঞ্জে নৌ দুর্ঘটনায় নিখোঁজের ২২ ঘন্টা পর ২ জনের মরদেহ উদ্বার  » «   জালিম সরকারের পতন না হওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরে যাব না : কাইয়ুম চৌধুরী  » «   মুন্সীগঞ্জে শান্তিপূর্ণ সমাবেশে হামলায় সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল  » «  

পইলে আরিফ ও সাহেব আলীর সমর্থকদের দিনব্যাপী সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত অর্ধশতাধিক

6সিলেটপোস্ট রিপোর্ট :হবিগঞ্জ শহরতলীর পইল গ্রামে বিজয়ী ও পরাজিত চেয়ারম্যানের সমর্থকদের মধ্যে দিনব্যাপী দফায় দফায় সংঘর্ষে অন্তত অর্ধশতাধিক নারী-পুরুষ আহত হয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় একজনকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে এবং ৩০ জনকে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রায় ১৫টি দোকান, ঘরবাড়ি ভাংচুর ও লুটপাট করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছেন। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানা যায়, গতকাল সোমবার সকালে বিজয়ী চেয়ারম্যান সৈয়দ মঈনুল হক আরিফের পক্ষের ঘরেরপাড় এলাকার এক সমর্থক বিজয় উল্লাস করার চেষ্টা করলে পাশ্ববর্তী আসামপাড়া গ্রামের কয়েকজন পরাজিত প্রার্থীর সমর্থক তার সাথে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে দুই গ্রামের সমর্থকরা স্থানীয় মাঠে লাটিসোটা হাতে নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়ে। সংঘর্ষের সময় আশপাশের কয়েকটি গ্রামের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এসময় পইল সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সংঘর্ষে নারী-পুরুষসহ অন্তত অর্ধশতাধিক লোকজন আহত হয়। সংঘর্ষের সময় ১৫টি দোকান ও বাড়িঘর ভাংচুর এবং লুটপাট করা হয়েছে। খবর পেয়ে অতিরিক্ত দাঙ্গা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ ঘটনার পর থেকে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এদিকে সংঘর্ষের পর বিকেল থেকে আবারো থেমে থেমে ও খন্ড খন্ড সংঘর্ষ চলতে থাকে। সংঘর্ষে এক পক্ষ অপর পক্ষের উপর গুপ্ত হামলা চালায়। সংঘর্ষের খবর পেয়ে সদর থানা পুলিশ ও পুলিশ লাইন থেকে অতিরিক্ত দাঙ্গা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে রাবারবুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

সংঘর্ষে আহতরা হলো সদর থানার ওসি তদন্ত বিশ্বজিত, এসআই ছানা উল্লা, এএসআই আবু নাঈম, কনস্টেবল ইয়াসির, পইল গ্রামের সিরাজ আলী, লিয়াকত আলী, জুয়েল, রুবেল মিয়া, সামছু মিয়া, সাদেক মিয়া, সাদেক আলী, রাজিব, সোহাগ, শামীম, কদ্দুছ, বেলাল, তৈয়ব আলী, আলমগীর, বাচ্চু, মনু, খেলু, হাবিবুর, রিপন, মিন্টু, ছালেক, দিনার, রউফ, স্বপন, আলী রহমান, চনু মিয়া, আক্রাম আলী, কুটি মিয়া, আহাদ, আলামিন, ইকবাল মিয়া, কাওছার মিয়া, আলীম উদ্দিন, কামাল মিয়া, কামরুল মিয়া, রমজান আলী।

এ ব্যাপারে নির্বাচিত চেয়ারম্যান মইনুল হক আরিফ জানান, সাহেব আলীর লোকজন তার সর্মকদের বাড়ি-ঘরে হামলা করলে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। অপরদিকে পরাজিত প্রার্থী সাহেব আলী জানান, তার এক সমর্থককে হবিগঞ্জে আসার পথে আরিফের লোকজন মশকারী করলে তার সমর্থকরা উত্তেজিত হয় এ নিয়ে সংঘর্ষ বাধে। পরে আরিফের লোকজনও তার সমর্থকদের উপর হামলা করে।

হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। বর্তমানে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.