সংবাদ শিরোনাম
লিবিয়ার থেকে মাফিয়া দালারের খপ্পরে পড়ে লাশ হয়ে ফিরতে হলো জগন্নাথপুরের এখওয়ান  » «   দোয়ারাবাজারে অনলাইনে  কোটি টাকা প্রতারণা আটক স্কুল শিক্ষক  » «   সুনামগঞ্জ কোটি টাকা আত্মসাৎ চেয়ারম্যান শেরিনকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি  » «   নবীগঞ্জে মসজিদের জুতার বক্সের ভিতরে থেকে ৩ মাসে একটি শিশু ছেলেকে পুলিশ উদ্ধার করেছে  » «   রেমিট্যান্স কেনার ডলার রেট কমল, কার্যকর ১ অক্টোবর  » «   দেয়ারাবাজারে রাতে ঘর থেকে মুখ চাপা দিয়ে এক সংখ্যালঘু স্কুল ছাত্রীকে অপরহণ   » «   শাওন হত্যার প্রতিবাদে সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ  » «   পার্কিং ট্রাকের পিছনে প্রাইভেট কারের ধাক্কা সুনামগঞ্জ -সিলেট মহাসড়কে নিহত ১ আহত ২  » «   জামালগঞ্জে নৌ দুর্ঘটনায় নিখোঁজের ২২ ঘন্টা পর ২ জনের মরদেহ উদ্বার  » «   জালিম সরকারের পতন না হওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরে যাব না : কাইয়ুম চৌধুরী  » «   মুন্সীগঞ্জে শান্তিপূর্ণ সমাবেশে হামলায় সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল  » «   দোয়ারাবাজারে হাওর থেকে বৃদ্ধের মৃতদেহ উদ্ধার  » «   ৪ মেয়ে জন্ম দেওয়ায় স্বামীর নির্যাতনে গৃহবধূর আত্মহত্যার ঘটনায় স্বামী কারাগারে  » «   আওয়ামীলীগ সরকার গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না : কাইয়ুম চৌধুরী  » «   নবীগঞ্জে নিখোঁজের ২দিন পর বিবিয়ানা নদী থেকে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার  » «  

গাছে বেঁধে গৃহবধূকে নির্যাতন

9সিলেটপোস্ট রিপোর্ট :সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার সোনাবাড়িয়া ইউনিয়নে এক গৃহবধূকে গাছে রশি দিয়ে বেঁধে নির্যাতন করা হয়েছে।

গত বুধবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।

ওই গৃহবধূ তিন ছেলের মা। তাঁর স্বামী ও বড় ছেলে ঢাকায় রিকশা চালান। ছোট দুই ছেলে কলারোয়ায় হোটেলের কর্মচারী। তিনি  মাঝেমধ্যে অন্যের জমিতে দিনমজুর হিসেবে কাজ করেন। বাড়িতে তিনি একাই থাকেন বলে জানিয়েছেন প্রতিবেশীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বুধবার সকালে ওই গৃহবধূ নিজেদের জমির সীমানা মাপছিলেন। আর এতেই আপত্তি সাবিরুল সর্দার নামের এক প্রতিবেশীর। প্রথমে বাকবিত-া, পরে মারপিট। এরপর ‘দেখাচ্ছি মজা’ বলেই দরিদ্র গৃহবধূকে ধরে রাখলেন সাবিরুল। চিৎকার দিয়ে বললেন, ‘গরুর রশি নিয়ে আয়।’

পরে কয়েকজনের সহযোগিতায় গৃহবধূকে বাড়ির নারকেল গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখেন সাবিরুল। একই সঙ্গে লাঠি দিয়ে মারধর করে নির্যাতন চালানো হয় তাঁর ওপর।

এক ফালি জমি নিয়ে ওই গৃহবধূর পরিবারের সঙ্গে বিরোধ চলছিল সাবিরুলের। এর জের ধরেই সাবিরুল তাঁকে মারধর করেন।

প্রত্যদর্শীদের বরাত দিয়ে সোনাবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম জানান, জমি মাপা নিয়ে বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে সৌদ সরদারের ছেলে সাবিরুল ওই গৃহবধূকে মারধর করে। সাবিরুল ও তাঁর লোকজন গৃহবধূর বাড়িঘর ভেঙে ফেলে।

ইউপি চেয়ারম্যান আরো জানান, মার খেয়ে  ও অপমানিত হয়ে গৃহবধূ বাড়ি থেকে বের হয়ে থানা পুলিশে অভিযোগ করতে চেয়েছিলেন। বাড়ি থেকে বেরও হন তিনি। সাবিরুল বুঝতে পেরে তাঁকে ফের ধরে আনেন। চিৎকার করে বলেন, ‘দড়ি নিয়ে আয়। থানায় যাবার মজা দেখাচ্ছি। ওর জমিও খাওয়াব চিরদিনের মতো।’

চেয়ারম্যান জানান, এরপরই ওই গৃহবধূকে রশি দিয়ে নারকেল গাছের সঙ্গে বেঁধে ফেলেন সাবিরুল। পরে লাঠি এনে তাঁকে বারবার আঘাত করেন। রোজাদার গৃহবধূ একপর্যায়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। তখন তাঁর পায়ে গরুর দড়ি পরিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখা হয়। এভাবেই তাঁর ওপর চলে নির্যাতন।

চেয়ারম্যান আরো জানান, গ্রামবাসীর কাছে খবর পেয়ে বিষয়টি তিনি কলারোয়া থানায় অবহিত করেন। তিনি নির্যাতনকারী সাবিরুলসহ অন্যদের কঠোর শাস্তি দাবি করেন।

কলারোয়া  থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু সালেহ মাসুদ করিম জানান, তিনি খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে গৃহবধূকে উদ্ধার করেন। পরে তাঁকে কলারোয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এখনো সেখানেই চিকিৎসাধীন আছেন ওই গৃহবধূ।

কলারোয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গৃহবধূ জানান, তাঁর কোনো দোষ নেই। তিনি শুধু স্বামীর জমিটুকু রক্ষা করতে চেয়েছিলেন। এ সময় তিনি সাবিরুল ও তাঁর সহযোগীদের শাস্তি দাবি করেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.