সংবাদ শিরোনাম
দেয়ারাবাজারে রাতে ঘর থেকে মুখ চাপা দিয়ে এক সংখ্যালঘু স্কুল ছাত্রীকে অপরহণ   » «   শাওন হত্যার প্রতিবাদে সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ  » «   পার্কিং ট্রাকের পিছনে প্রাইভেট কারের ধাক্কা সুনামগঞ্জ -সিলেট মহাসড়কে নিহত ১ আহত ২  » «   জামালগঞ্জে নৌ দুর্ঘটনায় নিখোঁজের ২২ ঘন্টা পর ২ জনের মরদেহ উদ্বার  » «   জালিম সরকারের পতন না হওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরে যাব না : কাইয়ুম চৌধুরী  » «   মুন্সীগঞ্জে শান্তিপূর্ণ সমাবেশে হামলায় সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল  » «   দোয়ারাবাজারে হাওর থেকে বৃদ্ধের মৃতদেহ উদ্ধার  » «   ৪ মেয়ে জন্ম দেওয়ায় স্বামীর নির্যাতনে গৃহবধূর আত্মহত্যার ঘটনায় স্বামী কারাগারে  » «   আওয়ামীলীগ সরকার গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না : কাইয়ুম চৌধুরী  » «   নবীগঞ্জে নিখোঁজের ২দিন পর বিবিয়ানা নদী থেকে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার  » «   শাল্লায় মেম্বার ও চেয়ারম্যান কর্তৃক শালিশের নামে কিশোরীকে ধর্ষণ  » «   গ্রাহকের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে উল্টো মামলায় গ্রেফতার করে হয়রানির প্রতিবাদে মানববন্ধন  » «   জৈন্তাপুরে বালু ভর্তি ট্রাক আটক:১ মাসের ব্যাবধানে ২ ট্রাক ভারতীয় কসমেটিকস জব্দ-আটক-১  » «   নবীগঞ্জে কবরস্থান ও সরকারি রাস্তা জোর পূর্বক দখল: হত্যার হুমকি, অভিযোগ দায়ের  » «   দোয়ারাবাজারে ১১ বছরের শিশু ধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেফতার  » «  

সিলেটের ৫ উপজেলায় পাথর ভাঙার অননুমোদিত সব মেশিন উচ্ছেদের নির্দেশ

1সিলেটপোস্ট রিপোর্ট::সিলেটের পাঁচ উপজেলায় পাথর ভাঙার অনুমোদনহীন সব মেশিন (স্টোন ক্র্যাশিং মেশিন) উচ্ছেদের রায় দিয়েছে হাই কোর্ট।

একইসঙ্গে অনুমোদিত মেশিনগুলোর জন্য একটি ‘জোন’ তৈরি করে আগামী তিন মাসের মধ্যে সেগুলো সেখানে স্থানান্তর করতে বলা হয়েছে রায়ে।

রায় বাস্তবায়নের বিষয়ে তিন মাস পর একটি প্রতিবেদন আদালতে জমা দিতে বিবাদীদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে জারি করা রুল নিষ্পত্তি করে বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের হাই কোর্ট বেঞ্চ মঙ্গলবার এ রায় দেয়।

বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) রিট আবেদনে দেওয়া এক রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষে আদালত এ রায় দেয়।

পাঁচটি উপজেলা হলো সিলেট সদর, কোম্পানীগঞ্জ, জৈন্তাপুর, গোয়াইনঘাট ও কানাইঘাট।

রিট আবেদনকারী সংগঠনের আইনজীবী মিনহাজুল হক চৌধুরী বলেন, “অননুমোদিত মেশিন উচ্ছেদ করতে বলা হয়েছে রায়ে।

“আর অনুমোদিত মেশিনগুলোকে স্টোন ক্র্যাশিং মেশিন স্থাপনের যে নীতিমালা আছে সে অনুযায়ী একটি জোন করে সেখানে স্থানন্তর করতে বলা হয়েছে। সরকারকে আগামী ৩ মাসের মধ্যে এটি করতে বলেছে আদালত।”

২০১৬ সালের ২৬ জানুয়ারি সিলেট জেলার পাঁচটি উপজেলায় ছাড়পত্রহীন পাথর ভাঙার মেশিন অবিলম্বে বন্ধের নির্দেশ দেয় হাই কোর্ট।

সিলেট সদর, কোম্পানীগঞ্জ, জৈন্তাপুর, গোয়াইনঘাট ও কানাইঘাটের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালককে এই আদেশ বাস্তবায়নের নির্দেশ দেওয়া হয়।

এরপর ২০১৫ সালের ৮ জুলাই বেলা পরিবেশগত ছাড়পত্রহীন এসব মেশিন বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে হাই কোর্টে রিট আবেদন করে।

এতে বলা হয়, উন্মুক্ত স্থান, খেলার মাঠ ও হাসপাতালের আশেপাশে মেশিন স্থাপন করে পাথর ভাঙার কারণে পরিবেশ দূষণ হচ্ছে।

ওই আবেদনের শুনানি করে ২০১৫ সালের ৩ অগাস্ট রুল জারি করে হাই কোর্টের বিচারপতি ফারাহ মাহবুব ও বিচারপতি ইজারুল হক আকন্দের বেঞ্চ।

রিট আবেদনে পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের সচিব, ভূমি সচিব, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব, সড়ক ও যোগাযোগ মন্ত্রণালয় সচিব, পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, প্রধান বন সংরক্ষকসহ ২১ জনকে বিবাদী করা হয়।

রিট আবেদনে জেলা প্রশাসনের একটি প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে বলা হয়, সিলেটে ৬০৬টি স্টোন ক্র্যাশার মেশিনের মধ্যে ২১৩টির ছাড়পত্র রয়েছে। ৩৯৩টির ছাড়পত্র নেই, এর মধ্যে ১৫০টির জন্য পরিবেশগত ছাড়পত্র চেয়ে আবেদন করা হয়েছে।

স্থানীয় প্রশাসনের বক্তব‌্য অনুযায়ী, পাথর ভাঙার এই মেশিনের কারণে পরিবেশের ক্ষতির পাশাপাশি শিশু ও বৃদ্ধদের শ্বাসকষ্ট ও চর্মরোগ বাড়ছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.