সংবাদ শিরোনাম
লিবিয়ার থেকে মাফিয়া দালারের খপ্পরে পড়ে লাশ হয়ে ফিরতে হলো জগন্নাথপুরের এখওয়ান  » «   দোয়ারাবাজারে অনলাইনে  কোটি টাকা প্রতারণা আটক স্কুল শিক্ষক  » «   সুনামগঞ্জ কোটি টাকা আত্মসাৎ চেয়ারম্যান শেরিনকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি  » «   নবীগঞ্জে মসজিদের জুতার বক্সের ভিতরে থেকে ৩ মাসে একটি শিশু ছেলেকে পুলিশ উদ্ধার করেছে  » «   রেমিট্যান্স কেনার ডলার রেট কমল, কার্যকর ১ অক্টোবর  » «   দেয়ারাবাজারে রাতে ঘর থেকে মুখ চাপা দিয়ে এক সংখ্যালঘু স্কুল ছাত্রীকে অপরহণ   » «   শাওন হত্যার প্রতিবাদে সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ  » «   পার্কিং ট্রাকের পিছনে প্রাইভেট কারের ধাক্কা সুনামগঞ্জ -সিলেট মহাসড়কে নিহত ১ আহত ২  » «   জামালগঞ্জে নৌ দুর্ঘটনায় নিখোঁজের ২২ ঘন্টা পর ২ জনের মরদেহ উদ্বার  » «   জালিম সরকারের পতন না হওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরে যাব না : কাইয়ুম চৌধুরী  » «   মুন্সীগঞ্জে শান্তিপূর্ণ সমাবেশে হামলায় সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল  » «   দোয়ারাবাজারে হাওর থেকে বৃদ্ধের মৃতদেহ উদ্ধার  » «   ৪ মেয়ে জন্ম দেওয়ায় স্বামীর নির্যাতনে গৃহবধূর আত্মহত্যার ঘটনায় স্বামী কারাগারে  » «   আওয়ামীলীগ সরকার গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না : কাইয়ুম চৌধুরী  » «   নবীগঞ্জে নিখোঁজের ২দিন পর বিবিয়ানা নদী থেকে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার  » «  

সিলেট ও সুনামগঞ্জে চালের দাম বাড়ছেই

1সিলেটপোস্ট রিপোর্ট::অকাল বৃষ্টি আর বন্যায় সিলেট ও সুনামগঞ্জে চালের দাম অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।

বুধবার (০৫ এপ্রিল) শহরের পাইকারি ও খুচরা বাজার ঘুরে দেখাগেছে এক সপ্তাহের ব্যবধানে কেজি প্রতি চালের দাম বেড়েছে ৫ থেকে ১০ টাকা পর্যন্ত। কিছুদিন আগেও ৫০ কেজি এক বস্তা চাল বিক্রি হয়েছে এক হাজার ৪০০ টাকায় বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে দুই হাজার ২০০ টাকায়।

এদিকে, খুচরা প্রতি কেজি পাইজাম চালের দাম ছিল ৩৮ টাকা থেকে বেড়ে বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে ৪৬ টাকা, মালা-২৯ ৪২ টাকা, চিকন সিদ্ধ চাল ৪৮ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

চালের দাম বাড়ার জন্য মিল মালিকদের সিন্ডিকেটকে দায়ী করছে খুচরা বিক্রেতারা।জগন্নাথপুরের কৃষক লেপাছ মিয়া জানান আমি মানুষের কাছ থেকে কর্য করে টাকা এনেছি, বৈশাখী তুলে টাকা ফেরত দিব।এখন আল্লাহ সব নিয়া নিলেন আমি মানুষের টাকা ফেরত কি ভাবে দিব ,আর ছেলে মেয়েকে নিয়ে খাব কি।বাজারে এসে দেখি চাউলের মধ্যে যে দাম আমার কাছে তেমন টাকা ও নাই ,তাই দুই কেজি চাউল কিনেছি ৯০ টাকায় ।ওরা তো আমাদের সাথে ডাকাতি শুরু করছে,এবাবে চললেতো ছেলে মেয়ে নিয়ে মরন চারা কোনু উপায় নেই কথা গুলো দুঃখবরা কন্ঠে বলেন এই কৃষক লেপাছ মিয়া ।এদিকে সিলেটের ওসমানীনগরের কলারাই বাজারের রতন দে সিলেটপোস্টকে জানান একদিকে বন্যায় কৃষকের যে বৈশখী স্বপ্ন ছিল সে স্বপ্নের হাসি বন্যায় নিয়ে গেছে।তিনি আরো জানান কিছু অসাধু ব্যাবসায়ী মিলে চাউলের দাম বাড়িয়েছে তাদের ইচ্ছে মতো,তাতে সাধারন মানুষের মধ্যে আহাকার সৃষ্টি হচ্ছে।অনেকে চাউল কিনতে এসেছে ৫ কেজি দাম বেশি থাকায় সে নিচ্ছে ৩ কেজি এভাবে আর কত দিন চলবে,মানুষতো পরিবার নিয়ে না খেয়ে থাকবে ।

ঠেলা চালক গৌস মিয়া (৩৫) জানিয়েছেন চালের দাম বেড়ে যাওয়ায় আমাদের মতো গরীব মানুষের বেঁচে থাকা কঠিন হয়ে পড়েছে। হাওরে পানি ঢোকার পর থেকে যে পরিমাণে চালের দাম বেড়েছে এর আগে কোনোদিন এতো দাম বাড়েনি। যে চাল এক সপ্তাহ আগে ৩৫ টাকা কেজি দরে কিনেছি এখন সেই চাল কেজি প্রতি ১০টাকা বেড়ে গেছে।

বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার খুচরা চাল বিক্রেতা আব্দুল খালেক (৪২) বলেন, আমাদের উপজেলায় কোনো মিলে চাল নেই। এজন্য  সুনামগঞ্জে এসেছি চাল কেনার জন্য। কিন্তু দাম আগের তুলনায় অনেক বেড়েছে। পাইকারি দরে ৫০ কেজি বস্তার আতপ গুটি স্বর্ণা চাল কিনেছি ২১শ টাকা ও সিদ্ধ চাল কিনেছি ২২শ টাকা বস্তা। এখন আমার যাতায়াত গাড়ি ভাড়াসহ চালের দাম রাখতে হবে। না হলে ক্ষতি । সামান্য লাভ না করলে কিভাবে পরিবার নিয়ে বাঁচবো।

রাসেল অটোরাইস মিলের মালিক রাসেল আহমদ বলেছেন, আমাদের মিলে কোনো ধান নেই। বৈশাখ মাসে ধান পাওয়া যাবে এবং পুরাতন ধান থাকলে দাম কম পাওয়া যাবেনা, এমন আশঙ্কায় সব ধান চাল করে বিক্রি করা হয়েছে। মিল মালিকরা কোন সিন্ডিকেট করছে না। অন্য জেলা থেকে চাল এনে বিক্রি করা হচ্ছে। যাতায়াত খরচ বাড়ার কারণে দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।

জেলা প্রশাসক শেখ রফিকুল ইসলাম এ প্রসঙ্গে বলেছেন, চালের দাম যাতে বৃদ্ধি না পায় সেজন্য আমরা মিল মালিকদের সঙ্গে বৈঠক করেছি। আমি ওএমএসএর চালের জন্য খাদ্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছি। জেলার সব ইউএনওকে  চালের বাজার মনিটরিং করার জন্য বলে দেওয়া হয়েছে। আমি ১১০ মেট্রিক টন জিআর চাল বিতরণের জন্য বিভিন্ন উপজেলায় পাঠিয়েছি। চালের দাম যাতে কোনো দোকান মালিক বেশি রাখতে না পারে সে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হচ্ছে। চালের সংকট যাতে না হয় সেজন্য অন্য জেলা থেকে চাল আনা হবে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.