সংবাদ শিরোনাম
সাংবাদিক মীর্জা সোহেলের মায়ের মৃত্যুতে সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের শোক  » «   তাহিরপুরে চোরাই পথে কয়লা সংগ্রহ করতে গিয়ে শ্রমিকের মৃত্যু !  » «   ছাতকে রাস্তার ঢালাই কাজে নিম্নমানের কংক্রিট ও বালু ব্যবহারে অনিয়মের অভিযোগ  » «   সুদখোর ও জুয়াড়ী গুলজার বাহিনীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ নবীগঞ্জের তিমিরপুর গ্রামবাসী  » «   লিবিয়ার থেকে মাফিয়া দালারের খপ্পরে পড়ে লাশ হয়ে ফিরতে হলো জগন্নাথপুরের এখওয়ান  » «   দোয়ারাবাজারে অনলাইনে  কোটি টাকা প্রতারণা আটক স্কুল শিক্ষক  » «   সুনামগঞ্জ কোটি টাকা আত্মসাৎ চেয়ারম্যান শেরিনকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি  » «   নবীগঞ্জে মসজিদের জুতার বক্সের ভিতরে থেকে ৩ মাসে একটি শিশু ছেলেকে পুলিশ উদ্ধার করেছে  » «   রেমিট্যান্স কেনার ডলার রেট কমল, কার্যকর ১ অক্টোবর  » «   দেয়ারাবাজারে রাতে ঘর থেকে মুখ চাপা দিয়ে এক সংখ্যালঘু স্কুল ছাত্রীকে অপরহণ   » «   শাওন হত্যার প্রতিবাদে সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ  » «   পার্কিং ট্রাকের পিছনে প্রাইভেট কারের ধাক্কা সুনামগঞ্জ -সিলেট মহাসড়কে নিহত ১ আহত ২  » «   জামালগঞ্জে নৌ দুর্ঘটনায় নিখোঁজের ২২ ঘন্টা পর ২ জনের মরদেহ উদ্বার  » «   জালিম সরকারের পতন না হওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরে যাব না : কাইয়ুম চৌধুরী  » «   মুন্সীগঞ্জে শান্তিপূর্ণ সমাবেশে হামলায় সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল  » «  

‘রাউধাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে’

7সিলেটপোস্ট রিপোর্ট:মালদ্বীপ মডেল কন্যা রাউধা আতিফের আত্মহত্যার এক সপ্তাহ পেরিয়ে গেলো। এখন পর্যন্ত এর কোন কারণ উদঘাটন করতে পারেনি পুলিশ। এমনকি রাজশাহী ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষের গৃহীত ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটিও কোন রিপোর্ট পেশ করেনি। ফলে এ ঘটনা জন্ম দিচ্ছে নানা রহস্যের। প্রশ্ন উঠছে নানান রকম। এই যখন অবস্থা, তখন অনেক পরে হলেও সাংবাদিকদের সামনে অবশেষে মুখ খুললেন সাগর কন্যার বাবা ভারতে কর্মরত ডাঃ মোহাম্মদ আতিফ। তিনি দাবি করলেন রাউধা আত্মহত্যা করেননি, হত্যা করা হয়েছে। এর পেছনে বেশ কিছু যুক্তি উপস্থাপন করেছেন তিনি। সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মামলা করার। তবে বৃহস্পতিবার রাত ১২টা পর্যন্ত কোন মামলা হয়নি বলে জানান শাহমুখদুম থানার ওসি জিল্লুর রহমান।

রাজশাহী ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজে পড়তে আসা রাউধা আতিফের আত্মহত্যার বিষয়টি কখনই মেনে নেননি তার বাবা। পুলিশের কাছে লিখিতভাবে না জানালেও একাধিকবার বলেছেন রাউধা আত্মহত্যা করতে পারেনা। এর পেছনে অন্য কোন রহস্য রয়েছে। আর সেই রহস্য উদঘাটনের জন্য ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজের দায়ের করা অপমৃত্যু মামলাটি শাহমুখদুম থানা থেকে হস্তান্তর করা হয় মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের কাছে। তাদের তদন্ত শুরু হতে না হতেই এই ঘটনার রহস্য উন্মোচনে কাজ শুরু করেন মালদ্বীপের দুই পুলিশ কর্মকর্তা সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রিয়াজ ও সিনিয়র পরিদর্শক আলী আহমেদ। কিন্ত এখন পর্যন্ত রাজশাহী মহানগর পুলিশ ঘটনার রহস্য সম্পর্কে পরিষ্কারভাবে কিছু বলতে পারেনি। এর মধ্যে দফায় দফায় তারা রাউধার হোস্টেল পরিদর্শন করেছেন। কথা বলছেন রাউধার সহপাঠি, শিক্ষক ও হোস্টেল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে। গত বুধবার তারা ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসকদের সঙ্গেও কথা বলেছেন।

৬ এপ্রিল বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১২টার দিক থেকে মালদ্বীপের দুই পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজে যান রাউধার বাবা মোহাম্মদ আতিফ। দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত ক্যাম্পাসে অবস্থান করেন। বিদেশি ছাত্রীদের ব্লকে আরো ১৪ জন বিদেশি ছাত্রী থাকেন। তাদের সঙ্গে কথা বলে কলেজ কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলেন। তাদের সাথে কথা বলে বেরিয়ে যাবার সময় সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন তিনি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন রাউধার ভাই হাসান আতিফ। তবে এ সময় তদন্তকারী মালদ্বীপ পুলিশ কর্মকর্তারা কথা বলতে চাননি এমনকি ছবিও তুলতে দেননি।

মোহাম্মদ আতিফ ভারতের ভোপাল গান্ধি মেডিকেল কলেজ থেকে তিনি এমবিবিএস পাস করেন। তিনিও ফরেনসিক মেডিসিন পড়েছেন। তিনি বলেন, ‘না, এটা নিছক আত্মহত্যা নয়। একজন চিকিৎসক হিসেবে লাশ দেখা হয়েছে। এটা আত্মহত্যা নয়। পরিকল্পিতভাবে রাউধাকে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনাস্থলের অবস্থা ও বিভিন্ন পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে কলেজ কর্তৃপক্ষ কাউকে বাঁচানোর জন্য সত্য কথা বলছে না। এমনকি মৃত্যুর দিনের ভিডিও ফুটেজ দিতে পারছেন না কলেজ কর্তৃপক্ষ বলে অভিযোগ রাউধার বাবার।
অন্যান্য দিনের ফুটেজ রয়েছে তাহলে ঐদিনের থাকবেনা কেন এমন প্রশ্ন আতিফের। ধাক্কা দিলেই রাউধার ২০৯ নং রুমের দরজা খুলে যায়। কিন্তু তাদেরকে বলা হয়েছে দরজা ভেঙে রাউধার লাশ উদ্ধার করা হয়। এছাড়াও পুলিশ পৌঁছার আগেই কর্তৃপক্ষ লাশ নামায় বলে তারা জানায়। কিন্তু সিলিং ফ্যানের সঙ্গে একজন মানুষ ঝুলে থাকার কোন আলমত দেখা যায়নি। আদো রাউধা ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে ছিল কিনা এ নিয়েও সন্দেহ রয়েছে মডেল কন্যার বাবার। কারণ দরজা আটকে রাউধা সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়েছিল। গলায় ফাঁস দিলে পুলিশ যাওয়ার আগেই কেন লাশ নামানো হলো? দরজা কেন খোলা হলো? দরজার ছিটকানি ভাঙার কোনো নমুনা দেখা যায়নি।
রাজশাহীতে আসার পর ক্যাম্পাসে নিজের মতো করে খোঁজ-খবর নিয়েছেন। সেখান থেকে মনে এমন অনেক প্রশ্ন জেগেছে যার উত্তর পাওয়া জরুরী হয়ে পড়েছে বলে জানান তিনি। মহানগর পুলিশের মুখমাত্র সিনিয়র সহকারী কমিশনার ইফতেখায়ের আলম বলেন, ‘মালদ্বীপের পুলিশ কর্মকর্তারা লিখিতভাবে কোনো প্রতিবেদন জমা দেননি। তারা কোনো ‘পরামর্শ’ দিতে চাইলে দূতাবাসের মাধ্যমে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে দিতে হবে বলে জানান তিনি।

গত ২৯ মার্চ ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজের ছাত্রী হোস্টেল থেকে রাউধার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ৩১ মার্চ শুক্রবার লাশের ময়না তদন্ত হয়। পরের দিন মহানগরীর হেতেম খাঁ গোরস্থানে দাফন করা হয়। তিনি কলেজটির এমবিবিএস দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। তবে একজন উঠতি মডেল হিসেবে তার ছিল আন্তর্জাতিক খ্যাতি। ২০১৬ সালের অক্টোবর সংখ্যায় ভারতের বিখ্যাত ‘ভোগ ইন্ডিয়া’ সাময়িকীর প্রচ্ছদে স্থান পান মালদ্বীপের নীল নয়না এই মডেল।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.