সংবাদ শিরোনাম
শাওন হত্যার প্রতিবাদে সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ  » «   পার্কিং ট্রাকের পিছনে প্রাইভেট কারের ধাক্কা সুনামগঞ্জ -সিলেট মহাসড়কে নিহত ১ আহত ২  » «   জামালগঞ্জে নৌ দুর্ঘটনায় নিখোঁজের ২২ ঘন্টা পর ২ জনের মরদেহ উদ্বার  » «   জালিম সরকারের পতন না হওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরে যাব না : কাইয়ুম চৌধুরী  » «   মুন্সীগঞ্জে শান্তিপূর্ণ সমাবেশে হামলায় সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল  » «   দোয়ারাবাজারে হাওর থেকে বৃদ্ধের মৃতদেহ উদ্ধার  » «   ৪ মেয়ে জন্ম দেওয়ায় স্বামীর নির্যাতনে গৃহবধূর আত্মহত্যার ঘটনায় স্বামী কারাগারে  » «   আওয়ামীলীগ সরকার গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না : কাইয়ুম চৌধুরী  » «   নবীগঞ্জে নিখোঁজের ২দিন পর বিবিয়ানা নদী থেকে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার  » «   শাল্লায় মেম্বার ও চেয়ারম্যান কর্তৃক শালিশের নামে কিশোরীকে ধর্ষণ  » «   গ্রাহকের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে উল্টো মামলায় গ্রেফতার করে হয়রানির প্রতিবাদে মানববন্ধন  » «   জৈন্তাপুরে বালু ভর্তি ট্রাক আটক:১ মাসের ব্যাবধানে ২ ট্রাক ভারতীয় কসমেটিকস জব্দ-আটক-১  » «   নবীগঞ্জে কবরস্থান ও সরকারি রাস্তা জোর পূর্বক দখল: হত্যার হুমকি, অভিযোগ দায়ের  » «   দোয়ারাবাজারে ১১ বছরের শিশু ধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেফতার  » «   নবীগঞ্জ সরকারী হাসপাতালের গাছ বিক্রি’র নিলামে অনিয়ম! ১৫ লাখ টাকার গাছ ২ লাখ টাকায় বিক্রি!  » «  

আমি পতিতা নই

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::তিনি আর্জেন্টিনার লা প্লাটা মিউনিসিপ্যালিটির প্রশাসনিক বিভাগের একজন নারীকর্মী। নাম সোনিয়া পেল্লিজারি (২৮)। পাশাপাশি পড়াশোনা করেন। কিন্তু অনলাইনে তার রগরগে সব ছবি। আরও আছে। আছে যৌনলীলার ভিডিও। এসব পোস্ট করে তিনি বাড়তি অর্থ উপার্জন করেন। এ জন্য তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

তাকে আখ্যায়িত করা হয়েছে পতিতা হিসেবে। কিন্তু তার সাফ দাবি, আমি পতিতা নই। বৃটেনের একটি ট্যাবলয়েড পত্রিকার অনলাইন সংস্করণ এ খবর দিয়েছে।

আর্জেন্টিনার এই যুবতী নিজের সত্যকে কখনো আড়াল করেন নি। স্বীকার করেছেন, যখনই অবসর সময় পান তখনই তিনি ভিডিও বানান। এক্ষেত্রে তিনি পেশাদার পুরুষদের ভাড়া করেন। তারপর বানান এক্স রেটেড ছবি। তার দাবি এর বিনিময়ে তিনি যে অর্থ পান তা দিয়ে পড়াশোনার ফি ও বাসা ভাড়া দেন।

২০১১ সালে তিনি বুয়েনস আয়ারস-এ স্থানীয় কাউন্সিলে কাজ করা শুরু করেন। পাশপাশি মডেলিং করার সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু ২০১৭ সালে তার মাথায় অন্য চিন্তা ঢুকে যায়। তিনি সিদ্ধান্ত নেন প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য নীল ছবি বানাবেন। যেমনি সিদ্ধান্ত, তেমনি কাজ। তিনি শুরু করে দিলেন। আসতে থাকে অর্থ। খুব দ্রুততম সময়ে বহু মানুষ তাকে পতিতা আখ্যায়িত করতে লাগলো।

কিন্তু তাদের সঙ্গে একমত নন সোনিয়া পেল্লিজারি। তিনি বলেন, আমি কোনো পতিতা নই। এসব সেক্স ভিডিও তৈরি করার জন্য পেশাদার পুরুষদের ব্যবহার করেছি। তারা এগুলো রেকর্ড করার জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। এর বিনিময়ে কি পরিমাণ অর্থ আমি উপার্জন করেছি তা বলবো না। তবে বলবো তা অনেক। এই অর্থ দিয়ে আমি বাড়ি ভাড়া ও অন্যান্য খরচ বহন করি।

তিনি এসব করছেন তা জানতেন তার প্রায় সব সহকর্মী। কিন্তু রগরগে কিছু ছবি প্রকাশ্যে আসার পর তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। জবাবে সোনিয়া পেল্লিজারি বলেছেন, তিনি জানেন না ওই ছবিগুলো কে পোস্ট করেছে। প্রথমত, একটি ভিডিও প্রকাশ হয়েছে। এতে আমি এক বন্ধুর সঙ্গে টপলেস ছিলাম। আমরা ছিলাম নগ্ন। এটা ছিল কয়েক সেকেন্ডের। এরপরই অন্য ভিডিওগুলো প্রকাশ হয়ে পড়ে। অন্য ভিডিওগুলোতে শারীরিক সম্পর্কের দৃশ্য থাকার কথা স্বীকার করেছেন তিনি। তবে এ জন্য তাকে চাকরি থেকে ছাঁটাই করা অন্যায় বলে মনে করেন সোনিয়া পেল্লিজারি।

তিনি বলেন, এসব ভিডিওর জন্য আমি বিব্রত নই। শুরু থেকে আমি কি করছি তা আমার পরিবার যেমন জানে, তেমনি জানে আমার সহকর্মীরা। আমি কখনো এসব গোপন করি নি। কিন্তু যখনই আমার ম্যানেজার বিষয়টি শুনেছেন এবং একটি ভিডিও ভাইরাল হয়ে গেলো, তখন তারা ক্ষিপ্ত হয়ে উঠলেন।

ওই ভিডিওর কারণে সোনিয়া পেল্লিজারিকে বরখাস্ত করার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ওই কাউন্সিলের প্রধান। তারা বলেছে, রাতে খুব বেশি সময় ব্যয় করে এসব তিনি করেন যে, সপ্তাহান্তে কাজে যোগ দেয়া তার জন্য খুব কষ্টের হয়ে উঠতো।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.