সংবাদ শিরোনাম
ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক-কর্মচারীদের এমপিওভুক্তির সুযোগে হাইকোর্টের রুল  » «   মাধ্যমিকে ভর্তি আবেদনের সময় বাড়ল  » «   একজন মানুষ তাঁর কর্মের মাধ্যমে সবার কাছে প্রিয় বা অপ্রিয় হন: চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাউছার আহমদ  » «   পদত্যাগ করলেন মুরাদ হাসান  » «   সংবাদ সম্মেলনে প্রবাসীর অভিযোগ:‘অন্যায়ভাবে আমাদের বাসাবাড়ি ভেঙে দিয়েছেন মেয়র আরিফ’  » «   সুনামগঞ্জের সদরগড়ে দুইপক্ষের ঝগড়া থামাতে গিয়ে এক সালিশকে পিঠিয়ে হত্যা  » «   জৈন্তাপুরে সিজদারত অবস্থায় এক ইমামের মৃত্যু  » «   সিলেটে আসছে শীত বদলে যাচ্ছে তাপমাত্রা-কাপড়ের দোকানে ক্রেতাদের ভিড়  » «   কুলাউড়ায় নবনির্বাচিত হাজিপুর ইউপি চেয়ারম্যানের ইন্ধনে সীমানা প্রাচীর ভাংচুর  » «   সুনামগঞ্জে ছাত্রদলের মিছিলে পুলিশের বাঁধা  » «   ইংল্যান্ডে প্রতি ৬০ জনে একজন কোভিড আক্রান্ত  » «   ছাতকের তেরা মিয়া হত্যা মামলায় একজনকে যাবজ্জীবন ও ৯ জনকে কারাদন্ড  » «   দোয়ারাবাজারে কাজ করতে দেরি হওয়ায় দোকান ভাঙচুর, মারধর   » «   সিলেটে বর্ণাঢ্য আয়োজনে বরণ করা হয়েছে বিজয়ের মাস ডিসেম্বরকে  » «   কানাইঘাটের আনন্দ কমিউনিটি সেন্টারে শোকের ছায়া-নারী বাবুর্চি সহ দু-জনের লাশ উদ্ধার  » «  

‘শুধু কিডনি না, আমার স্বামীর জন্য জীবন দিতেও রাজি ছিলাম-লিজা

সিলেটপোস্ট ডেস্ক ::স্বামীর দুটি কিডনি বিকল হওয়ার পর মৃত্যু যখন অবধারিত তখন নিজের একটি কিডনি দান করে স্বামীর জীবন বাঁচালেন এক স্ত্রী। এই ঘটনাটি ঘটেছে লাখাই উপজেলায়। বিষয়টি ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ১৭ জুন মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় ঢাকা শ্যমলী সিকেডি কিডনি হসপিটালে দুই জনেরই একসাথে অপারেশন হয়। অপারেশন করে স্বামীর অচল ২টি কিডনি ফেলে দিয়ে স্ত্রীর দেওয়া ১টি কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয়।

কর্তব্যরত সার্জন বলেন- ‘অপারেশন সাকসেসফুল হয়েছে, রোগীকে কমপক্ষে দুই সপ্তাহ হসপিটালে থাকতে হবে।’

লাখাই উপজেলার ফুলবাড়িয়া গ্রামের মৃত হোসেন মিয়ার ছেলে মিজানুর রহমানের সাথে ৫ বছর পূর্বে হবিগঞ্জ সদর উপজেলার লোকড়া ইউনিয়নের আমজাদ আলীর মেয়ে লিজা আক্তারের বিবাহ হয়। সম্প্রতি স্বামী মিজানুর রহমান হঠাৎ গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। এ অবস্থায় ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপিটালে তাকে ডাক্তার দেখানো হয়। সেখানে ডাক্তার বিভিন্ন রকমের পরীক্ষা নিরীক্ষা করার পরামর্শ দেন। পরে ডাক্তার রিপোর্ট দেখে বলেন- মিজানুর রহমানের ২টি কিডনি অচল হয়ে গেছে। রোগীকে বাঁচাতে হলে কমপক্ষে ১টি কিডনির ব্যবস্থা করতে হবে।

ডাক্তারের পরামর্শে তারা বিভিন্ন কিডনি ব্যাংকে যোগাযোগ করেও কিডনি সংগ্রহ করতে পারেননি। পরে পরিবারের সবাইকে করণীয় সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে সবাই নিজের অপারগতা তুলে ধরেন। এ অবস্থায় গৃহবধূ লিজা আক্তার রাজী হন কিডনি দিতে।

তিনি বলেন- ‘শুধু কিডনি না, আমার স্বামীর জন্য জীবন দিতে হলে জীবন দিয়ে দিব তারপর আমার স্বামী বেঁচে থাক। আমার সোনালী সংসার বেঁচে থাক। বিভিন্ন লোকজন বিষয়টি ফেসবুকে পোস্ট দিলে তা মুহুর্তের মাঝেই ভাইরাল হয়ে যায়।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.