সংবাদ শিরোনাম
নগরীর ঘাষিটুলা কলাপাড়া এলাকায় মা-ছেলের মৃত্যু  » «   দিরাইয়ের উদির হাওর বিলে বাধঁ দেয়া নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত,৪০ জন আহত  » «   রাষ্ট্র ধর্ম নিয়ে তথ্য প্রতিমন্ত্রীর মন্তব্যের কড়া জবাব দিলেন সাঈদ খোকন  » «   শান্তিগঞ্জে জয়কলস গ্রামে প্রতিপক্ষের রামদার কোপে একজন নিহত,একজন আহত  » «   পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের এই বছরের প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা বাতিল  » «   সিলেটে দুই কেন্দ্রে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে ৮ হাজার শিক্ষার্থী  » «   সিলেটে আজ মনোনয়নপত্র দাখিল করছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা  » «   জননেত্রী শেখ হাসিনা একজন স্ট্রং ক্লাইমেট ফাইটার- পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি  » «   অনুসন্ধান কল্যান সোসাইটি সিলেট এর সভা অনুষ্টিত  » «   কুমিল্লার ঘটনায় জকিগঞ্জে পুলিশ ও বিক্ষুব্ধ জনতার সংঘর্ষ:পুলিশসহ অন্তত অর্ধশত আহত  » «   তৃতীয় ধাপে ইউপি ও পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা  » «   সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জে যাত্রীবাহি বাসের ধাক্কায় তিন মোটর সাইকেল আরোহী নিহত  » «   নগরীর বনকলাপাড়া এলাকায় ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস লাগিয়ে এক তরুনের আত্মহত্যা  » «   শারদীয় দুর্গাপূজায় সিলেট বিভাগীয় অনলাইন প্রেসক্লাবের শুভেচ্ছা  » «   সিলেট নগরীতে ছাত্রলীগের কমিটি প্রত্যাখান করে বিক্ষোভ মিছিল  » «  

স্কুল-কলেজ খুলেছে আজ: শিক্ষক-শিক্ষিকা, শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখর হয়ে ওঠে প্রতিষ্ঠানগুলো

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::দীর্ঘ প্রায় দেড় বছর পর অবশেষে আজ রোববার থেকে সিলেটসহ সারাদেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো খুলেছে। স্কুল ও কলেজ পর্যায়ের সকল প্রতিষ্ঠানে আজ ছিল প্রাণের উচ্ছ্বাস। বহুদিন পর শিক্ষক-শিক্ষিকা, শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখর হয়ে ওঠে প্রতিষ্ঠানগুলো।

গেল বছরের মার্চের পর আজ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হয়েছে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খোলার সিদ্ধান্ত তাদের নিজস্ব।


আজ রোববার সকাল থেকে সিলেটের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে  গিয়ে দেখাগেছে- প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেই বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করা হচ্ছে।

বালুচর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে দেখা যায়, শিক্ষার্থীদের লাইনে দাঁড় করিয়ে শারীরিক তাপমাত্রা মেপে ভেতরে প্রবেশ করানো হচ্ছে। শ্রেণিকক্ষে একেকটি বেঞ্চে একজন করে শিক্ষার্থীকে বসতে দেওয়া হয়। শ্রেণিকক্ষে প্রবেশের আগে শিক্ষার্থীদের জন্য হাত ধোয়ার ব্যবস্থা ছিল। বাধ্যতামূলকভাবে সকল শিক্ষক-শিক্ষার্থীকে মুখে মাস্ক পরতে হয়েছে।

একই চিত্র দেখা গেছে সিলেট নগরীর ফেইম একাডেমি স্কুল এন্ড কলেজে,সরকারী মডেল স্কুল এন্ড কলেজ,সিলেট সরকারি কিন্টার গার্টেন, আখালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ব্লু-বার্ড স্কুল এন্ড কলেজ, দি এইডেড হাই স্কুল, সিলেট সরকারি মহিলা কলেজসহ প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে।

শিক্ষকরা জানান, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার ঘোষণা আসার পর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ করা হয়েছে। ধুয়েমুছে সাফ করা হয়েছে সবকিছু। প্রতিষ্ঠান প্রাঙ্গনে ছিটানো হয়েছে জীবাণুনাশক। শিক্ষার্থীদের তাপমাত্রা পরিমাপের জন্য কেনা হয়েছে ইনফ্রারেড থার্মোমিটার।

বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আইসোলেশন কক্ষও প্রস্তুত রাখা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানে আসার পর কোনো শিক্ষার্থী হঠাৎ অসুস্থতা বোধ করলে তাকে সেখানে রাখা হবে।

আগে যেখানে একই শ্রেণিকক্ষে বেশ কিছুসংখ্যক শিক্ষার্থী একসাথে বসে ক্লাস করতো, এখন প্রতিটি শ্রেণিকক্ষে ২০ জনের মতো করে বসানো হচ্ছে। সংক্রমণ ঝুঁকি এড়াতেই এমনটা করা হচ্ছে বলে জানালেন শিক্ষকরা।

এছাড়া, এখনই শিক্ষার্থীদেরকে পড়াশোনার চাপ দেওয়া হচ্ছে না। দীর্ঘদিন পর তারা ক্লাসে ফিরেছে। আপাতত তাদেরকে পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেওয়ার সুযোগ দিতে চান শিক্ষকরা। তাদের মানসিক অবস্থায় যেন চাপ না পড়ে, সেদিকেও খেয়াল রাখা হচ্ছে।


বালুচর ফেইম একডেমি স্কুল এন্ড কলেজের  শিক্ষিকা বীতি আক্তার  সিলেটপোস্টকে বলেন, ‘একটু নতনত্বের মধ্য দিয়ে ক্লাস শুরু হলো। আগে একটি ক্লাসে ৭০-৮০ জন করে শিক্ষার্থী উপস্থিত থাকতো। কিন্তু এখন একটি ক্লাবে ২০ জনের বেশি না। একটি বেঞ্চে একজন করে শিক্ষার্থী বসানো হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা যেটা করবো, শিক্ষার্থীদের উৎফুল্ল রেখে, শারীরিক ও মানসিক দিক দিয়ে খেয়াল রেখে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করবো। যাতে বাচ্চারা মনোযোগী হয় ক্লাসে, এদের শিখন ঘাটতি যাতে কমিয়ে আনা যায়।’

বালুচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা সুপ্রিতা রায় বলেন, ‘অনেক দিন পর আমাদের ছাত্রছাত্রীদের দেখছি, আমাদের আনন্দের সীমা নাই। আজকে পঞ্চম ও তৃতীয় শ্রেণির ক্লাস হয়েছে। হ্যান্ড স্যানিটাইজার, সাবান সব আছে। শিক্ষকরা সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে শিক্ষার্থীদের ক্লাসে বসিয়েছেন। সবদিকে খেয়াল রাখা হচ্ছে।’

সরকারী মডেল স্কুল এন্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত প্রিন্সিপাল এ কে এম মনিরুল ইসলাম সরকার সিলেটপোস্টকে বলেন, ‘চলতি বছর যারা এসএসসি পরীক্ষার্থী,তারা আজ অনেকও ক্লাসে উপস্থিত ছিল। আগামী বছরের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বেশিরভাগ এবং ষষ্ঠ শ্রেণির প্রায় এসেছিল স্কুলে। এই তিন ক্লাসের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ৭০ ভাগ উপস্থিতি ছিল আজ। প্রথম দিন হওয়ায় সবাই হয়তো স্কুলে আসেনি। সামনের ক্লাসগুলোতে উপস্থিতি বাড়বে।’শিক্ষকরা জানান, আপাতত স্বাস্থ্যবিধি মেনে থেকে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থী, পঞ্চম, দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির প্রতিদিন এবং প্রথম থেকে চতুর্থ ও ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণিতে সপ্তাহে একদিন ক্লাস নেওয়া হবে। নিজেদের সুবিধামতো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো রুটিন তৈরি করেছে।

এদিকে, স্কুলে ফিরতে পেরে শিক্ষার্থীদের মধ্যে উচ্ছ্বসিত ভাব প্রত্যক্ষ করা গেছে। সিংহভাগ শিক্ষার্থীই নতুন ড্রেস পরে প্রতিষ্ঠানে এসেছিল।

বালুচর ফেইম একডেমি স্কুল এন্ড কলেজের
পঞ্চম শ্রেণির শেখ আলেয়া রহমান এশা বলেন, অনেক দিন পর ক্লাসে ফিরতে পেরে আনন্দিত। বান্ধবীদের সাথে অনেক দিন পর দেখা হয়েছে, খুব ভালো লাগছে।’

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.