সংবাদ শিরোনাম
ওসমানীনগর উপজেলা প্রশাসনের মসজিদ ঘিরে ধ্রুমজাল!  » «   ঢাকা- সিলেট মহা সড়কের দক্ষিণ কুর্শা এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১, পরিবারে চলছে শোকের মাতম  » «   জৈন্তাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত এক, আহত ৫  » «   মদিনা মার্কেটস্থ কালিবাড়ি রোডে ট্রাকচাপায় ব্যবসায়ী ফয়জুর নিহত  » «   খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকার কাজ করছে-সিলেটে খাদ্যমন্ত্রী  » «   আশারকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান আইয়ূব খান কর্তৃক উপকারভোগীদের ২শতাধিক ড্রামের টাকা আত্মসাত,বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দায়ের  » «   গোয়াইনঘাটে পাহাড়ী ঢল ও ভারী বর্ষণে নিম্মাঞ্চল প্লাবিত  » «   সুনামগঞ্জ সদর ও বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় পাহাড়ি ঢলের পানিতে ১৬ শত একর পাকা ধান ও বাড়ি-ঘর ভেসে গেছে  » «   সাংবা‌দিক বাবরের পিতার মৃত্যুতে অনুসন্ধান কল্যাণ সোসাইটি সিলেট এর শোক প্রকাশ  » «   জৈন্তাপুরে নৌকা ডুবিতে একি পরিবারের ৫ জন উদ্ধার ১ জন নিখোঁজ  » «   সুনামগঞ্জের মধ্যনগর উপজেলা সীমান্ত এখন গরু চোরাচালানের স্বর্গরাজ্য  » «   নবীগঞ্জে নিহত জাহান খুনের ৮ দিন অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত কাউকে ধরতে পড়েনি পুলিশ!  » «   পুলিশি নির্যাতনে নিহত রায়হান আহমদ হত্যা মামলার সাক্ষী দিলেন তার স্ত্রী তান্নী  » «   নবীগঞ্জে ধর্ষককারীকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ডের রায় দিয়েছেন হবিগঞ্জের নারী ও শিশু নির্যাতন আদালত  » «   জগন্নাথপুরে ধান সংগ্রহ শুরু  » «  

চীনে সন্তান নিলেই বেতনসহ এক বছর ছুটি পাবেন নারী কর্মীরা

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::চীনে দম্পতিদের সন্তান গ্রহণে সরকারিভাবে নানাভাবে উৎসাহিত করা হচ্ছে। এর অংশ হিসেবে দেশটির উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় শানজি প্রদেশের কর্তৃপক্ষ এক ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নেওয়ার পরিকল্পনা করেছে। নতুন চিন্তাভাবনা অনুযায়ী, প্রদেশটিতে কোনো নারী কর্মী সন্তান নিলে পূর্ণ বেতনে এক বছরের মাতৃত্বকালীন ছুটি পাবেন তিনি।

রয়টার্স বুধবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, বর্তমানে চীনের শানজি প্রদেশে সন্তান হলে নারী কর্মীরা ১৬৮ দিনের ছুটি কাটাতে পারেন। প্রদেশটির সরকার এই ছুটি বাড়িয়ে প্রায় এক বছর করতে চায়। এ বিষয়ে জনমত যাচাই করছে তারা। একই সঙ্গে তৃতীয় সন্তান জন্ম নিলে পুরুষ কর্মীদের পিতৃত্বকালীন ছুটি বাড়িয়ে ৩০ দিন করতে চায় সরকার।

বিশ্বে সবচেয়ে বেশি জনসংখ্যার দেশ চীন। তবে দেশটিতে জনসংখ্যার বৃদ্ধি দ্রুত কমে আসছে। এ কারণে দম্পতিদের সন্তান গ্রহণে উৎসাহিত করতে নানা উদ্যোগ নিয়েছে দেশটির সরকার। গত মে মাসে সরকার ঘোষণা দিয়েছে, দম্পতিরা চাইলে দুজনের বেশি সন্তান নিতে পারবেন।

চীনের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় সীমান্ত এলাকার প্রত্যন্ত শহর ও গ্রামে সন্তানের জন্মহার আশঙ্কাজনক হারে কমতে শুরু করেছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে হেইলংজিয়াং প্রদেশের সরকার সেখানকার সীমান্ত এলাকায় বসবাসকারী দম্পতিদের চারটি সন্তান নেওয়ার সুযোগ দিয়েছে।

দীর্ঘদিন ধরে চীনে এক সন্তান নীতি কার্যকর ছিল। জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার কমতে শুরু করায় ২০১৬ সালে দেশটি কয়েক দশকের পুরোনো এ আইন থেকে সরে আসে। চালু হয় দুই সন্তান নীতি। এতে দম্পতিরা একের অধিক সন্তান নেওয়ার সুযোগ পান। তবে আইনের এই পরিবর্তনে খুব একটা সুফল মেলেনি। চলতি বছর দেশটিতে তিন সন্তান নেওয়ার সুযোগ দেওয়া হয় দম্পতিদের।

মূলত জীবনযাত্রার বাড়তি ব্যয় চীনা দম্পতিদের সন্তান গ্রহণের আগ্রহ বৃদ্ধির পথে প্রতিবন্ধকতা হিসেবে রয়ে গেছে। তাই সন্তান গ্রহণে দম্পতিদের উৎসাহ দিতে সরকারি প্রণোদনা, কর্মক্ষেত্রে ছুটি বাড়ানোসহ নানা সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হচ্ছে। এমনকি কোথাও কোথাও দম্পতিদের চারটি পর্যন্ত সন্তান নিতে সরকারের পক্ষ থেকে উৎসাহ দেওয়া হচ্ছে।

১৯৬০-এর দশকের পর বর্তমানে চীনে সন্তান জন্মের হার সবচেয়ে কম। দেশটির ন্যাশনাল ব্যুরো অব স্ট্যাটিসটিকস গত এপ্রিলে জানিয়েছে, গত বছর দেশটিতে এক কোটি ২০ লাখ শিশুর জন্ম হয়েছে। ২০১৬ সালে দেশটিতে এক কোটি ৮০ লাখ শিশুর জন্ম হয়।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.