সংবাদ শিরোনাম
ফেসবুকে প্রেম করে ছাত্র মামুনকে বিয়ে করে সুখের সংসার গড়া সেই শিক্ষিকার লাশ উদ্ধার  » «   আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর নির্মাণে অনিয়ম: ঘটনা টের পেয়ে রাতের আধারেই ঘরগুলো ভাঙ্গলো প্রশাসন   » «   আউশকান্দিতে ডাকাতি প্রস্তুতিকালে আগ্নেয়াস্ত্র সহ ৫ ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ  » «   আওয়ামীলীগের লুটপাটের কারনে দেশে দুর্ভিক্ষ চলছে-সিলেট মহানগর বিএনপি  » «   এডিশন্যাল ডি আই জি কে জেলা শ্রমিক ঐক্য পরিষদের বিদায় সংবর্ধনা ও ক্রেষ্ট প্রদান  » «   আউশকান্দি কলেজিয়েট স্কুলে বখাটেদের উৎপাত বেড়ে গেছে!ছাত্রী ও অভিভাবকরা আতংকিত  » «   সুনামগঞ্জ জেলা ও দিরাই উপজেলা শিক্ষা অফিসারের বিরুদ্ধে দুদকে ঘুষ-দূর্নীতি ও অর্থ কেলেংকারীর অভিযোগ   » «   মাস খানেক পরই বিদ্যুৎ ঘাটতিসহ সবকিছুই ঠিক হয়ে যাবে-পরিকল্পনা মন্ত্রী মান্নান  » «   ওসমানীনগরে পরিমাপে পেট্রোল কম দেয়ায় সুপ্রীম ও আবীর ফিলিং স্টেশনকে জরিমানা  » «   জগন্নাথপুরে এক কৃষক হত্যা মামলায় ১ জনের আমৃত্যু ও ৫ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড  » «   সিলেটের ওসমানীনগরে মা-মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ  » «   জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির অযৌক্তিক সিদ্বান্ত-বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল  » «   দেশের সংকট নিরসনের জন্য আওয়ামীলীগকে বিতাড়িত করার বিকল্প নেই :খন্দকার মুক্তাদির  » «   চুনারুঘাটে ছেলের হাতে মা খুন,ছেলে আটক  » «   জৈন্তাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২  » «  

বাড়ী ফেরার লড়াইয়ে জগন্নাথপুরের বন্যার্তরা

জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি::পরিবার-পরিজন নিয়ে টানা ২৭ দিন আশ্রয়কেন্দ্রে প্রতিবন্ধী আব্দুস সত্তার। ভয়াবহ বন্যায় তাঁর বাড়িঘর বিপর্যস্ত হয়েছে। নিঃস্ব হয়ে পড়ায় ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িঘর মেরামত করতে পারছেন না তিনি।

আব্দুস সত্তারের বাড়ি সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর পৌরসভার শেরপুর এলাকায়। ব্যাটারিচালিত রিকশা চালিয়ে তিনি জীবিকা নির্বাহ করেন।

আব্দুস সাত্তার গতকাল বুধবার গত ১৭ জুন ভয়াবহ ঢলে তাঁর বসতঘরে ঊরু সমান পানি ওঠে। অনেক কষ্টে বৃদ্ধা মা, স্ত্রী ও তিন সন্তান নিয়ে স্থানীয় আব্দুর রশিদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় তলায় আশ্রয় নেন। সংসারের উপার্জনের একমাত্র অবলম্বন ব্যাটারিচালিত রিকশাটিও পানিতে তলিয়ে যায়। নষ্ট হয়ে গেছে রিকশার মোটর।

বর্তমানে সহায়তার ওপর নির্ভরশীল সাত্তার বলেন, ‘পানি নেমে গেলেও ঘরটি তছনছ হয়ে গেছে। ঘরের বেড়া, বাঁশের পালা (খুঁটি) নষ্ট হয়ে গেছে। ঘর বসবাসের অনুপযোগী হওয়ায় আশ্রয়কেন্দ্রে আছি।’ তিনি বলেন, ‘জন্মগতভাবে শারীরিক কারণে ঠিকমতো চলাফেরা করতে পারি না। ব্যাটারিচালিত রিকশা চালিয়ে সংসার চালিয়ে আসছিলাম। বন্যা রিকশার মোটর অচল করে দিয়েছে। মানুষের সহায়তায় বেঁচে আছি কোনোভাবে। অসচ্ছলতার কারণে ঘর মেরামত করতে পারছি না। তবে লড়াই করছি।

শুধু আব্দুস সাত্তার নন, তাঁর মতো শত শত পরিবারের বসতবাড়ি তীব্র ঢেউয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ১৭ জুন ভারি বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে জগন্নাথপুর পৌরসভাসহ উপজেলার আটটি ইউনিয়ন প্লাবিত হয়। হাজার হাজার ঘরবাড়ি পানিতে তলিয়ে যায়। লাখো মানুষ আশ্রয়কেন্দ্র ও উঁচু বাসাবাড়িতে আশ্রয় নেয়।
হাওরপারের বাসিন্দা উপজেলার কবিরপুর গ্রামের দরিদ্র মারুফ মিয়া বলেন, ‘বন্যা, আফাল আর ঢেউয়ে বসতবাড়ি ভেঙে দিয়েছে। আত্মীয়ের বাড়িতে এখনো পরিবারের লোকজন নিয়ে আছি। ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িটি কিভাবে সংস্কার করব ভেবে পাচ্ছি না। হাতে কোনো টাকা-পয়সা নেই। মানুষের সহায়তায় কোনোভাবে বেঁচে আছি।’

নলুয়া হাওর বেষ্টিত চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম বকুল বলেন, এবার ভয়াবহ বন্যায় বিপর্যস্ত করে দিয়েছে হাওরাঞ্চলের বাড়িঘর। বন্যার ঢলের সঙ্গে আফাল আর ঢেউয়ে ঘরবাড়ি বিধস্ত হয়। ক্ষতিগ্রস্ত বসতবাড়ি মেরামতে লড়ছে হাওরপারের মানুষ।

উপজেলা ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের (পিআইও) শাহাদাত হোসেন ভূঁইয়া জানান, জগন্নাথপুরে একটি পৌরসভা ও আটটি ইউনিয়নে বন্যায় সাড়ে পাঁচ হাজার ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

ইউএনও সাজেদুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা প্রথম ধাপে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর মানবিক উপহার হিসেবে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ৪৪০ পরিবারকে ১০ হাজার টাকা করে দিয়েছি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.