সংবাদ শিরোনাম
দোয়ারাবাজারে কেন্দ্র ফি’র নামে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায়  » «   তাহিরপুরে বিদ্যালয়ের আয়-ব্যয়ের হিসাব দিতে প্রধান শিক্ষকের টালবাহানা   » «   দোয়ারাবাজারে সরকারি ভাতা দেওয়ার নামে প্রতারণা, প্রতারককে জরিমানা  » «   মৌলভীবাজারের জুড়িতে ২ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামিসহ দুইজন গ্রেফতার  » «   দোয়ারাবাজারে বিদেশী মদের চালানসহ মাদক কারবারি আটক  » «   সুনামগঞ্জের তিন উপজেলার ১৫টি স্পটে চলছে সহশ্রাধিক অবৈধ ক্রাশার মেশিনের তান্ডব  » «   সুনামগঞ্জে পিতা ও কন্যার উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের  » «   সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে স্কুল ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার  » «   সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে অজ্ঞাত বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার  » «   নবীগঞ্জে যুদ্বাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ফিরোজ মিয়া আমাদের মধ্যে আর নেই! রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাপন  » «   জুড়ীতে ফেনসিডিল ও ইয়াবাসহ আটক ১  » «   ছাতকে আবুল হোসেনকে পরিকল্পিত হত্যা নাকি অন্য কারণ?প্রকৃত অপরাধীদের আড়াল করার অপচেষ্টা   » «   দোয়ারাবাজারে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক বরখাস্ত   » «   তাহিরপুরে রাতের আঁধারে কৃষকের জমির ধান কেটে নিল প্রতিপক্ষের লাঠিয়াল বাহিনী   » «   ঢাকা- সিলেট মহাসড়কে অ্যাম্বুলেন্স ও সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষ আহত ৭, আশংখাজনক ভাবে ৫জনকে সিলেট প্রেরন  » «  

শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল আসলেই ছিলেন ‘তারুণ্যের রোল মডেল-বিভাগীয় কমিশনার

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::সিলেট বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার ড মুহাম্মদ মোশাররফ হোসেন বলেছেন, শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল আসলেই ছিলেন ‘তারুণ্যের রোল মডেল’। একজন তরুণের মধ্যে যা যা সম্ভাবনা থাকার কথা সবই ছিল তার মধ্যে। মাত্র ২৬ বছরের জীবনকালে তিনি শিক্ষা, সংস্কৃতি ও খেলাধুলাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে এর প্রমাণ রেখে গেছেন। তাই পনেরোই আগস্টের আগে-পরে ষড়যন্ত্রকারী ও ঘাতক চক্র তাকে নিয়ে মিথ্যাচার চালায়-অপবাদ রটায়।
শুক্রবার সকালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বড়ছেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭৩ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে সিলেট জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে জেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।
বিভাগীয় কমিশনার বলেন, শেখ কামাল পরিপূর্ণ জীবন পেলে তিনিও বঙ্গবন্ধুর সার্থক উত্তরসূরি হতেন। তার মধ্যে পিতার মতো মাটির প্রতি-মানুষের প্রতি অফুরান ভালবাসা ছিল। তাই ঘাতকরা তাকে বাঁচতে দেয়নি।
তিনি বলেন, যারা বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে মেনে নেয়নি-বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে দেয়নি তারাই পনেরোই আগস্ট ও একুশে আগস্টের জঘন্যতম হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে।
সিলেটের জেলা প্রশাসক মো মজিবর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, পুলিশের রেঞ্জ ডিআইজি মফিজ উদ্দিন আহমদ পিপিএম, সিলেট মহানগর পুলিশ কমিশনার মো নিশারুল আরিফ, পুলিশ সুপার (অতিরিক্ত ডিআইজি) মোহাম্মদ ফরিদউদ্দিন পিপিএম, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সন্দ্বীপ কুমার সিংহ, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন অহমদ ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মো জাকির হোসেন। সঞ্চলনায় ছিলেন, জেলা সাংস্কৃতিক কর্মকর্তা অসিত বরণ দাশ গুপ্ত।
বিশেষ অতিথি ডিআইজি মফিজ উদ্দিন আহমদ বলেন, শেখ কামাল সদ্য স্বাধীন দেশে স্বল্পকালীন জীবনেও অনেক কিছু করে গেছে, যা থেকে নতুন প্রজন্মকে শিক্ষা নিতে হবে।
এসএমপি কমিশনার মো নিশারুল আরিফ শেখ কামালের স্মৃতিচারণ করে বলেন, দেশের জন্যে-জাতির কল্যাণে নিবেদিতপ্রাণ একজন তরুণের বিরুদ্ধে কত কুৎসাই না রটানো হয়েছিল। এসব যে শতভাগ মিথ্যা ছিল তা ১৯৯৬ সালের পর প্রমাণিত হতে শুরু করে।
পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদউদ্দিন বলেন, পনেরোই আগস্টের হত্যাযজ্ঞের পর বঙ্গবন্ধু পরিবারের সবার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হয়। শেখ কামাল কেবল মেধাবী ছিলেন না-ইতিহাস, ঐতিহ্য এবং সংস্কৃতি রক্ষায়ও অনন্য অবদান রেখে গেছেন।
সিলেট জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সন্দ্বীপ কুমার সিংহ বলেন, নতুন প্রজন্মকে শেখ কামালকে জানতে হবে।
মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ বলেন, শেখ কামালের বিরুদ্ধে পরিকল্পিতভাবে অপপ্রচার চালানো হয়েছিল।
মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন বলেন, বাংলা ও বাঙালির ইতিহাসে শেখ কামালের নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।
সভাপতির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মো মজিবর রহমান শেখ কামালের জীবনের বিভিন্ন দিক বিশেষ করে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ, স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে খেলাধুলার উন্নয়নে আবাহনী ক্রীড়া চক্র গঠন, খেলোয়াড়দের বিদেশে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করে দেওয়া ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে সংশ্লিষ্ট থেকে সংস্কৃতির ধারাকে বেগবান করার বিষয় তুলে ধরেন।
এর আগে সকাল ৯টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয় প্রাঙ্গণে বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামালের অস্থায়ী প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করা হয়।
অন্যান্য কর্মসূচিতে ছিল, শিশুদের নানা ধরনের প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ, বাদ জুমা কোরান খতম ও দোয়া মাহফিল।
এছাড়া জেলা স্টেডিয়ামে জেলা ক্রীড়া সংস্থার ব্যবস্থাপনায় প্রীতি ফুটবল ম্যাচের কর্মসূচি রয়েছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.