সংবাদ শিরোনাম
দক্ষিণ সুরমায় মেয়েকে ফিরে পেতে এক পিতার আকুতি  » «   বানারীপাড়ায় সাজাপ্রাপ্ত পলাতক দূর্দান্ত প্রতারক রঞ্জন গ্রেফতার  » «   দক্ষিন সুরমার সুলতানপুর-গহরপুর সড়কে দুর্ঘটনায় নিহত ৩  » «   সাংবাদিক অজয় পালের প্রতিকৃতিতে সিলেটের সর্বস্থরের নাগরিকদের শ্রদ্ধা নিবেদন  » «   ঐতিহ্যবাহী ‘মাছের মেলা’ শেরপুরে হাজারো মানুষের ঢল  » «   দক্ষিণ সুমরার বাইপাস এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় দুইজন নিহত  » «   আমাদের দেশের শিক্ষার্থীরা আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন হয়ে গড়ে উঠছে: মন্ত্রী ইমরান  » «   আওয়ামীলীগের বিদায় নিশ্চিত করে দেশে জনগণের সরকার প্রতিষ্টা করতে হবে :কাইয়ুম চৌধুরী  » «   অবকাঠামো উন্নয়ন এর মাধ্যমে দেশ গড়ার কাজ করতে হবে-প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী ইমরান আহমদ  » «   ছাতকে অধ্যক্ষ অপসারণের দাবীতে সড়ক অবরোধ করেছে ছাত্রলীগ  » «   দোয়ারাবাজারে বিজিবি’র অভিযানে চৌদ্দ লক্ষ টাকা উদ্ধার  » «   দোয়ারাবাজারে চিলাই নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন! ২টিড্রেজার মেশিনসহ বালু জব্দ  » «   কুলাউড়ায় ৩ কেজি গাঁজাসহ ১জনকে আটক করেছে পুলিশ  » «   প্রধানমন্ত্রীর নতুন স্বপ্ন স্মার্ট বাংলাদেশে কেউ পিছিয়ে থাকবেনা : জেলা প্রশাসক  » «   শীত বস্ত্র কম্বল বিতরণ করেছে মানবাধিকার ও অনুসন্ধান কল্যাণ সোসাইটি  » «  

সিলেটের ওসমানীনগরে মা-মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::এক সপ্তাহ ধরে সিলেটের ভিন্ন স্থানে আটকে রেখে ১৫ বছরের একটি মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় তার মাকেও ধর্ষণ করা হয়। এই ঘটনায় অভিযুক্ত দুই বন্ধুকে গ্রেপ্তার করেছে ওসমানীনগর থানা পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, উপজেলার ব্রাহ্মনগ্রামের মতিন খাঁন (৩৬) ও বগুড়া জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার বুলবুল ফকির (৩২)।

পুলিশ জানিয়েছে, গত ৩ মাস ধরে ওসমানীনগর উপজেলার গোয়ারবাজার এলাকার একটি হোটেলে বুয়ার কাজ করতেন ভুক্তভোগী ওই নারী। কর্মস্থলের পাশে ১৫ বছরের মেয়েকে নিয়ে একটি ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন তিনি। হোটেল মালিক বুলবুল এবং সুপ্রীম ফিলিং স্টেশনের ম্যানেজার মতিন দুজন একে অপরের বন্ধু। সে সুবাধে মতিন প্রায় সময় ওই নারীর বাসায় আসা যাওয়া করতেন। এক পর্যায়ে মতিন ফুসলিয়ে ওই নারীর মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে।

গত মাসের ১৪ জুন সন্ধ্যায় মতিন কৌশলে নারীর বাসায় যায় এবং জোরপূর্বক তার মেয়েকে ধর্ষণ করে। বিষয়টি অন্য কাউকে জানালে ওই মেয়েকে মেরে ফেলারও হুমকি দেয়। মেয়েটি ভয়ে বিষয়টি কাউকে না জানালে ২০ জুলাই মতিন ওই মেয়েকে ঘুরতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে সিলেট শহরের একটি হোটেলে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে আবার জোরপূর্বক ধর্ষণ করে মতিন। ২-৩ দিন পর মেয়েটির অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ায় সে অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে এ বিষয়টি তার মাকে জানালে তার মা হোটেল মালিক বুলবুলকে বিষয়টি জানায়। এতে বুলবুল মেয়ের মাকে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে।

পরে গত ১ আগস্ট দুপুরে মতিন ও বুলবুল দুই বন্ধু একসঙ্গে ওই নারীর বাসায় যায়। বাসায় গিয়ে মা মেয়েকে আটকে মতিন মেয়েকে এবং বুলবুল মেয়ের মাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে তাদেরকে বাসা থেকে বের করে দেয়। তাদের হাত থেকে রক্ষা পেয়ে ওই নারী ওসমানীনগর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ পেয়ে নির্যাতিত মা ও মেয়েকে পরীক্ষার জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠায়।

এই ঘটনায় ভোক্তাভোগী নারী গত বৃহস্পতিবার ওসমানীনগর থানায় দুইজনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরর পর ওই দিনই ধর্ষণের অভিযোগে দুই বন্ধুকে গ্রেপ্তার করে থানা পুলিশ।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওসমানীনগর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুবিনয় বৈদ্য বলেন, মামলা দায়েরর পর অভিযান চালিয়ে পুলিশ আসামীদের গ্রেপ্তার করেছে। তাদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

facebook sharing button
twitter sharing button
whatsapp sharing button
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.