সংবাদ শিরোনাম
লিবিয়ার থেকে মাফিয়া দালারের খপ্পরে পড়ে লাশ হয়ে ফিরতে হলো জগন্নাথপুরের এখওয়ান  » «   দোয়ারাবাজারে অনলাইনে  কোটি টাকা প্রতারণা আটক স্কুল শিক্ষক  » «   সুনামগঞ্জ কোটি টাকা আত্মসাৎ চেয়ারম্যান শেরিনকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি  » «   নবীগঞ্জে মসজিদের জুতার বক্সের ভিতরে থেকে ৩ মাসে একটি শিশু ছেলেকে পুলিশ উদ্ধার করেছে  » «   রেমিট্যান্স কেনার ডলার রেট কমল, কার্যকর ১ অক্টোবর  » «   দেয়ারাবাজারে রাতে ঘর থেকে মুখ চাপা দিয়ে এক সংখ্যালঘু স্কুল ছাত্রীকে অপরহণ   » «   শাওন হত্যার প্রতিবাদে সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ  » «   পার্কিং ট্রাকের পিছনে প্রাইভেট কারের ধাক্কা সুনামগঞ্জ -সিলেট মহাসড়কে নিহত ১ আহত ২  » «   জামালগঞ্জে নৌ দুর্ঘটনায় নিখোঁজের ২২ ঘন্টা পর ২ জনের মরদেহ উদ্বার  » «   জালিম সরকারের পতন না হওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরে যাব না : কাইয়ুম চৌধুরী  » «   মুন্সীগঞ্জে শান্তিপূর্ণ সমাবেশে হামলায় সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল  » «   দোয়ারাবাজারে হাওর থেকে বৃদ্ধের মৃতদেহ উদ্ধার  » «   ৪ মেয়ে জন্ম দেওয়ায় স্বামীর নির্যাতনে গৃহবধূর আত্মহত্যার ঘটনায় স্বামী কারাগারে  » «   আওয়ামীলীগ সরকার গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না : কাইয়ুম চৌধুরী  » «   নবীগঞ্জে নিখোঁজের ২দিন পর বিবিয়ানা নদী থেকে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার  » «  

সিলেটে এক মাদক আসামিকে প্রবেশনে মুক্তি

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::সিলেটে এক আসামীকে প্রবেশনে মুক্তি দিয়েছেন চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত সিলেট। বৃহস্পতিবার (৮ আগস্ট) আসামির এক বছরের সাজা স্থগিত করে সিলেটের চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক কাউছার আহমেদ প্রবেশনে মুক্তির আদেশ দেন।
২০২০ সালের ৩০ আগস্ট ৭ আমর্ড পুলিশ ব্যাটেলিয়ান সিলেট কর্তৃক ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ওসমানীনগর থানার ১৯ মাইল কালারাইল বাজারস্থ স্কাই টাওয়ারের সামন থেকে তাকে দেড় কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত ওই আসামি হলেন সিলেট জেলার ওসমানীনগর থানার পশ্চিম সিরাজ নগর গ্রামের মো. আব্দুল্লা মিয়ার ছেলে মর্তুজা মিয়া।
আদালত সূত্রে জানা যায়, আসামি মর্তুজা মিয়াকে দেড় কেজি গাঁজাসহ পুলিশের হাতে আটক হওয়ার পর ওসমানীনগর থানায় তাঁর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়। যার নং ৮৭/২০২০। মর্তুজার বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক তাঁকে এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। এ সময় মর্তুজাকে দোষী সাব্যস্থ করা হয় এবং তার বয়স, লিঙ্গ ও নিজেকে সংশোধনের আগ্রহ এবং তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের প্রকৃতি ইত্যাদি বিবেচনায় অত্র আদালত তাকে দন্ড ঘোষণার পরিবর্তে দি প্রবেশন অব অফেন্ডার্স অর্ডিনেন্স, ১৯৬০ এর ৫ ধারার বিধানমতে এক বছর সময়ের জন্য প্রবেশনে মুক্তি দেওয়া হয়।
৮টি শর্তে আসামীকে প্রবেশনে মুক্তি দেওয়া হয়- (১) আসামী প্রবেশন কর্মকর্তা সঙ্গে আইনানুগ নির্দেশনা মেনে চলা (২) আসামী তার ঠিকানা পরিবর্তন করতে চাইলে প্রবেশন কর্মকর্তাকে অবহিত করা, (৩) প্রবেশন সময়ে কোন অপরাধে না জড়ানো, (৪) সংশোধনপূর্বক সৎ, পরিশ্রমী এবং আইনমান্যকারী হিসেবে সমাজে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করা, (৫) মূল্যবোধ বিরোধী কোন কাজে নিজেকে লিপ্ত না রাখা, (৬) প্রবেশন সময়ে কোন অপরাধ না করা এবং শান্তি ও উত্তম আচরণ বজায় রাখা, (৭) আদালত কর্তৃক আসামীকে তলব করা হলে যথা সময়ে উপস্থিত এবং দণ্ড প্রদান করা হলে তা ভোগ করা, (৮) নিজেকে সংশোধনপূর্বক সৎ, পরিশ্রমি এবং আইনমান্যকারী ব্যক্তি হিসেবে সমাজে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য নিজ ধর্মীয় অনুশাসন কঠোরভঅবে অনুসরণ করা।
আসামী প্রবেশনে থাকালীন সময়ে কোন শর্ত ভঙ্গ হলে তার প্রবেশনের আদেশ বাতিল করা হবে এবং মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ২০১৮ এ ধারা ৩৬(১) এর ১৯(ক) মোতাবেক দন্ড ঘোষনা করা হবে। আসামি ওই সব শর্ত মানছেন কি না, জেলা প্রবেশন কর্মকর্তা প্রতি ৬ মাস অন্তর অন্তর আদালতে প্রতিবেদন দেবেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.