সংবাদ শিরোনাম
বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে তরুণীর অনশন  » «   দোয়ারাবাজারে কেন্দ্র ফি’র নামে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায়  » «   তাহিরপুরে বিদ্যালয়ের আয়-ব্যয়ের হিসাব দিতে প্রধান শিক্ষকের টালবাহানা   » «   দোয়ারাবাজারে সরকারি ভাতা দেওয়ার নামে প্রতারণা, প্রতারককে জরিমানা  » «   মৌলভীবাজারের জুড়িতে ২ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামিসহ দুইজন গ্রেফতার  » «   দোয়ারাবাজারে বিদেশী মদের চালানসহ মাদক কারবারি আটক  » «   সুনামগঞ্জের তিন উপজেলার ১৫টি স্পটে চলছে সহশ্রাধিক অবৈধ ক্রাশার মেশিনের তান্ডব  » «   সুনামগঞ্জে পিতা ও কন্যার উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের  » «   সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে স্কুল ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার  » «   সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে অজ্ঞাত বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার  » «   নবীগঞ্জে যুদ্বাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ফিরোজ মিয়া আমাদের মধ্যে আর নেই! রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাপন  » «   জুড়ীতে ফেনসিডিল ও ইয়াবাসহ আটক ১  » «   ছাতকে আবুল হোসেনকে পরিকল্পিত হত্যা নাকি অন্য কারণ?প্রকৃত অপরাধীদের আড়াল করার অপচেষ্টা   » «   দোয়ারাবাজারে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক বরখাস্ত   » «   তাহিরপুরে রাতের আঁধারে কৃষকের জমির ধান কেটে নিল প্রতিপক্ষের লাঠিয়াল বাহিনী   » «  

প্রকাশিত সংবাদের সাথে ছাত্রদল নেতৃবৃন্দের ভিন্ন বক্তব্য 

সিলেটপোস্ট ডেস্ক::সিলেটের স্থানীয় একটি পত্রিকায় আজ মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) ‘ছাত্রদল নেতার কীর্তি’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। প্রকাশিত এ সংবাদের সাথে ফজলে রাব্বি আহসান ও আব্দুস সালাম টিপু সম্পূর্ণ দ্বিমত প্রকাশ করেছেন।

সিলেট মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বি আহসান বলেন, আমরা নাকি তিন মাস হোটেল আশরাফী অবস্থান করে ভাড়া পরিশোধ না করে চলে এসেছি। তিন মাস সেই হোটেলে অবস্থান করলে আমরা ঐ সময়ে সিলেটের রাজপথে মিছিল, মিটিং সভা সমাবেশে কিভাবে উপস্থিত ছিলাম? হোটেল কর্তৃপক্ষ এত টাকা বকেয়া রাখার তো প্রশ্নই আসেনা। যেখানে দৈনিক ভাড়া আদায় করে নেয় হোটেল আশরাফীর কর্তৃপক্ষ। প্রকৃত ঘটনা হচ্ছে, এই বছরের জানুয়ারি মাসের শেষের দিকে আমরা হোটেল আশরাফীতে কয়েকদিন ছিলাম। আমরা চলে আসার সময় আমাদের যাবতীয় পাওনা পরিশোধ করে আসি। টিক এর পরে এই হোটেলে অবস্থান করেন আমাদের পরিচিত দুইজন। তারা সেখানে কয়েকদিন ছিলেন এবং আমাদের না জানিয়ে হোটেল কর্তৃপক্ষের সাথে তাদের একটি ব্যবসায়িক লেনদেন হয়। হোটেল কর্তৃপক্ষ আমাদের পরিচিত দুইজনের ভোটার আইডি কার্ড সংরক্ষণ করেননি এবং তাদের উভয়ের ব্যবসায়িক দেনা পাওনা রয়েছে। পরবর্তীতে আমি ও আবদুস সালাম টিপু  এই দেনা পাওনার বিষয়ে অবগত হই এবং সময়সীমা নির্ধারণ করে রাখা হয়। আমার ও আবদুস সালাম টিপুর কাছে হোটেল আশরাফী কর্তৃপক্ষের কোন দেনা পাওনা নেই। রাজনৈতিক হীন উদ্দেশ্য এ রকম সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।
সিলেট মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম টিপু বলেন, আমি গত সেপ্টেম্বর মাসের ২৫ ও ২৬ তারিখ হোটেল আশরাফীতে বোর্ডার ছিলাম। আমাদের উপর তো তাদের কোনো অভিযোগ ছিলনা। অভিযোগ থাকলে তারা আমাদের জানাতেন। তাদের সাথে আমাদের কোনো দেনা পাওনা নেই। মূলত আমাদের রাজনৈতিকভাবে হেয় করার উদ্দেশ্য এমন সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে, আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।
এ ব্যাপারে আশরাফী হোটেলের ম্যানেজার আজাদ বলেন,  আমাদের হোটেলের গ্রাহক ছাত্রদলনেতা ফজলে রাব্বি আহসান ও আব্দুস সালাম টিপুর সাথে ভুল বুঝাবুঝি হয়েছিল। এ ভুল বুঝাবুঝির থেকে সৃষ্ট ঘটনার সমাধান হয়েছে। তাঁদের সাথে আমাদের হোটেলের কোন দেনাপাওনা নেই।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.