সংবাদ শিরোনাম
মৌলভীবাজারের জুড়িতে ২ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামিসহ দুইজন গ্রেফতার  » «   দোয়ারাবাজারে বিদেশী মদের চালানসহ মাদক কারবারি আটক  » «   সুনামগঞ্জের তিন উপজেলার ১৫টি স্পটে চলছে সহশ্রাধিক অবৈধ ক্রাশার মেশিনের তান্ডব  » «   সুনামগঞ্জে পিতা ও কন্যার উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের  » «   সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে স্কুল ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার  » «   সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে অজ্ঞাত বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার  » «   নবীগঞ্জে যুদ্বাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ফিরোজ মিয়া আমাদের মধ্যে আর নেই! রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাপন  » «   জুড়ীতে ফেনসিডিল ও ইয়াবাসহ আটক ১  » «   ছাতকে আবুল হোসেনকে পরিকল্পিত হত্যা নাকি অন্য কারণ?প্রকৃত অপরাধীদের আড়াল করার অপচেষ্টা   » «   দোয়ারাবাজারে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক বরখাস্ত   » «   তাহিরপুরে রাতের আঁধারে কৃষকের জমির ধান কেটে নিল প্রতিপক্ষের লাঠিয়াল বাহিনী   » «   ঢাকা- সিলেট মহাসড়কে অ্যাম্বুলেন্স ও সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষ আহত ৭, আশংখাজনক ভাবে ৫জনকে সিলেট প্রেরন  » «   দিরাইয়ে আওয়ামীলীগের সম্মেলনে হামলার ঘটনায় ৭৭ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা  » «   এ সরকারকে বলে দিতে চাই আর কোনো হুমকি ধামকিতে কাজ হবে না-মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর  » «   সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে আওয়ামীলীগের ত্রি- বার্ষিক সম্মেলনে সংঘর্ষ ও নিহতের মামলায় গ্রেপ্তার ৪  » «  

আমাদের আদিবাসী জনগোষ্ঠী

0009সিলেটপোস্ট টোয়েন্টিফোর .কম ডেস্ক : আদিবাসীরা পরিচিত হয় রাষ্ট্রের মূলধারার জনগোষ্ঠী থেকে ভিন্ন নামে। কিন্তু মূলস্রোত থেকে বিচ্ছিন্ন হয়েও তারা অদ্ভুত সরল জীবনযাপন করে যায়। প্রতিটি আদিবাসী গোত্রের জীবনযাত্রাই যেন ছবির মত অপূর্ব। শত অভাব-অনটন, প্রতিকূলতার মাঝেও এই মানুষগুলোর সারল্য আজও পবিত্র সেই আগের মতই।

আদিবাসীদের জীবনধারা স্বভাবতই আলাদা। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় আদিবাসীগোষ্ঠী হলো চাকমা। তাদের রাজা হন সমাজের প্রধান ব্যক্তি। চাকমারা তাদের গ্রামকে আদাম বলে, গ্রামপ্রধানকে বলে কার্বারী। বৌদ্ধধর্মের অনুসারী এই গোত্রের বর্ণিল বর্ষবরণ অনুষ্ঠানটি হলো বিজু। বিজুর দিনে চাকমাদের ঘরে ঘরে পাঁচন তৈরি হয়, যা পাঁচ রকমের সব্জির মিশেলে একটি বিশেষ পদ। চাকমা মেয়েরা বিজুর দিনে পানিতে ফুল ভাসিয়ে দিয়ে আচার পালন করে থাকে।

সাঁওতালরা এদেশের দ্বিতীয় সংখ্যাগরিষ্ঠ আদিবাসী গোত্র। তারা যে এলাকায় বসবাস করে সেটিকে দেশ বলে। নিজেদের প্রধানকে তারা বলে দেশপ্রধান। তাদের প্রধান উৎসব সোহরাই। এই মানুষগুলো কথা বলে সাঁওতালী ভাষায় যার কোন লিখিত বর্ণমালা নেই।

ত্রিপুরা হলো আরেকটি আদিবাসীগোষ্ঠী যারা মঙ্গোলীয় বংশোদ্ভূত। বৈসুক তাদের মূল উৎসব। এছাড়া কের, কাথারক, গোমতী পূজা, খাচী পূজা, চুমলাই ইত্যাদি নামক আরো কিছু উৎসব তারা পালন করে থাকে। এই গোত্রের লোকেরা কথা বলে কক-বরক ভাষায়।

মঙ্গোলীয় বংশোদ্ভূত জনগোষ্ঠীর অন্য একটি আদিবাসী গোত্র হচ্ছে রাখাইন। রাখাইনদের আদি নিবাস ছিলো আরাকান(মিয়ানমার)। তাদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় অনুষ্ঠান বুদ্ধপূর্ণিমা। জলকেলি উৎসবও রাখাইনরা সাড়ম্বরে পালন করে থাকে। এই গোত্রের বর্ষবরণের অনুষ্ঠানটি সাংগ্রাই নামে পরিচিত। সাংগ্রাইয়ের দিনে রাখাইনরা ফুল তোলে। যে যতো বেশি ফুল দিয়ে বুদ্ধের অর্চনা করবে তার ততো বেশি পূণ্য হবে, এমনটিই তাদের বিশ্বাস। আদিবাসীদের বর্ষবরণ উৎসবটি সামগ্রিকভাবে বৈসাবি উৎসব নামে অভিহিত হয় যা বৈসুক, সাংগ্রাই ও বিজুর সংক্ষিপ্ত রূপ।

এই আদিবাসী গোত্রগুলো ছাড়াও এদেশে আরো অনেক আদিবাসীগোষ্ঠী রয়েছে। মনিপুরী, গারো, খিয়াং গোত্র তাদের মাঝে অন্যতম। ইসলাম ধর্মাবলম্বী পাঙনরাও আছে আদিবাসীদের প্রতিনিধি হয়ে।

পার্বত্য অঞ্চলের এই সহজসরল মানুষগুলো নানা প্রতিকূলতার মধ্যে থেকেও নিজেদের স্বতন্ত্র জীবনধারা বজায় রেখেছে। প্রতিনিয়ত তারা নিজেদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার সংগ্রামে থাকে অথচ তবুও মানুষগুলোর মুখের হাসি অমলিন। আদিবাসীদের জীবনযাত্রা তাই সবার কাছেই অন্যরকম আকর্ষণ তৈরি করে।

আইএস

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.