সংবাদ শিরোনাম
ছাতকে দু`পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ আহত অর্ধশতাধিক, আটক-১২  » «   ফেসবুকে প্রেম করে ছাত্র মামুনকে বিয়ে করে সুখের সংসার গড়া সেই শিক্ষিকার লাশ উদ্ধার  » «   আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর নির্মাণে অনিয়ম: ঘটনা টের পেয়ে রাতের আধারেই ঘরগুলো ভাঙ্গলো প্রশাসন   » «   আউশকান্দিতে ডাকাতি প্রস্তুতিকালে আগ্নেয়াস্ত্র সহ ৫ ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ  » «   আওয়ামীলীগের লুটপাটের কারনে দেশে দুর্ভিক্ষ চলছে-সিলেট মহানগর বিএনপি  » «   এডিশন্যাল ডি আই জি কে জেলা শ্রমিক ঐক্য পরিষদের বিদায় সংবর্ধনা ও ক্রেষ্ট প্রদান  » «   আউশকান্দি কলেজিয়েট স্কুলে বখাটেদের উৎপাত বেড়ে গেছে!ছাত্রী ও অভিভাবকরা আতংকিত  » «   সুনামগঞ্জ জেলা ও দিরাই উপজেলা শিক্ষা অফিসারের বিরুদ্ধে দুদকে ঘুষ-দূর্নীতি ও অর্থ কেলেংকারীর অভিযোগ   » «   মাস খানেক পরই বিদ্যুৎ ঘাটতিসহ সবকিছুই ঠিক হয়ে যাবে-পরিকল্পনা মন্ত্রী মান্নান  » «   ওসমানীনগরে পরিমাপে পেট্রোল কম দেয়ায় সুপ্রীম ও আবীর ফিলিং স্টেশনকে জরিমানা  » «   জগন্নাথপুরে এক কৃষক হত্যা মামলায় ১ জনের আমৃত্যু ও ৫ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড  » «   সিলেটের ওসমানীনগরে মা-মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ  » «   জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির অযৌক্তিক সিদ্বান্ত-বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল  » «   দেশের সংকট নিরসনের জন্য আওয়ামীলীগকে বিতাড়িত করার বিকল্প নেই :খন্দকার মুক্তাদির  » «   চুনারুঘাটে ছেলের হাতে মা খুন,ছেলে আটক  » «  

হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে অক্সিজেন খুলে নেয়ায় এক শিশুর করুন মৃত্যু

sisuসিলেটপোস্টরিপোর্ট:হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে অক্সিজেন খুলে নেয়ার কারণে আকালেই ঝড়ে গেল ১০ মাসের শিশু মারিয়ায় প্রাণ। অভিযোগ কর্তব্যরত আয়ার বিরুদ্ধে। মাত্র ৩০ টাকার কারণেই নাকি অক্সিজেন খুলে নিয়ে যায় ওই আয়া। সদর হাসপাতালে সাংবাদিকদের কাছে এমনই অভিযোগ করেন শিশু মারিয়ার পিতা ফারুক মিয়া। সূত্রে জানা যায়, মাধবপুর উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের ফারুক মিয়ার শিশু কন্যা মারিয়া কে অসুস্থ অবস্থায় হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে এনে ভর্তি করা হয় গতকাল দুপুরে। গতকাল সন্ধ্যায় মারিয়ার অবস্থার অবনতি হলে তাকে অক্সিকেজন দেন কর্ত্যরত চিকিৎসক। কিন্ত অক্সিজেন দেয়ার কিছুক্ষন পরে শিশু ওয়ার্ডে দায়িত্বে থাকা আয়া মাধবী ওই অক্সিজেনটি খুলে নেন। অক্সিজেন খুলে নেয়ার সাথে সাথে মৃত্যুর খুলে ঢলে পরে শিশু মারিয়া। কিছুক্ষন পরেই তার মৃত্যু হয়। অভিযোগ উঠেছে আয়া মাধবী ৩০ টাকার বিনিময়ে নাকি অক্সিজেনটি খুলে নিয়ে অন্য এক রোগীকে দিয়ে দেয়। এ নিয়ে ক্ষোভ দেখা দেয় তাদের আত্মীয় স্বজনদের। এদিকে শিশু মারিয়ার মৃত্যুতে সদর হাসপাতালে কান্নায় ভেঙ্গে পরে মারিয়ার মা ও অন্যান্য আত্মীয় স্বজনরা। হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, শিশু ওয়ার্ডে প্রয়োজনের তুলনায় অক্সিজেন কম হওয়ায় এক রোগীর পর অন্য রোগীকে অক্সিজেন দেয়া হয়।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.