সংবাদ শিরোনাম
মাস খানেক পরই বিদ্যুৎ ঘাটতিসহ সবকিছুই ঠিক হয়ে যাবে-পরিকল্পনা মন্ত্রী মান্নান  » «   ওসমানীনগরে পরিমাপে পেট্রোল কম দেয়ায় সুপ্রীম ও আবীর ফিলিং স্টেশনকে জরিমানা  » «   জগন্নাথপুরে এক কৃষক হত্যা মামলায় ১ জনের আমৃত্যু ও ৫ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড  » «   সিলেটের ওসমানীনগরে মা-মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ  » «   জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির অযৌক্তিক সিদ্বান্ত-বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল  » «   দেশের সংকট নিরসনের জন্য আওয়ামীলীগকে বিতাড়িত করার বিকল্প নেই :খন্দকার মুক্তাদির  » «   চুনারুঘাটে ছেলের হাতে মা খুন,ছেলে আটক  » «   জৈন্তাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২  » «   দোয়ারাবাজারে ভারতীয় মালামালসহ আটক ২   » «   ওসমানীনগর থানার ওসি অথর্ব ও দুর্নীতিবাজ-মোকাব্বির খান এমপি  » «   ভোলায় পুলিশী ন্যাক্কারজনক ঘটনায় সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল  » «   সিলেটে ঘুষ ছাড়া সহজে কারো পাসপোর্ট হয়না: ব্যবস্থা নিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর চিঠি  » «   সুনামগঞ্জে জেলা বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের বাধা  » «   জামালগঞ্জে জামায়াতের আমীর দেশীয় আগ্নেয়াস্ত্র জিহাদি বইসহ ২জন আটক-মামলা  » «   সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুরে পুকুরে ডুবে দুই বোনের মৃত্যু  » «  

ডালা সাজিয়ে রমরমা মাদক–ব্যবসা

সিলেটপোস্ট ডেস্ক : ‘মামা, আসেন, নিয়া যান। ১০ টাকার না ২০ টাকার?’
এভাবে সুর করে ক্রেতাদের ডেকে চলেছেন তাঁরা। সংখ্যায় প্রায় ৩০-৪০ জন। রেল লাইনের বস্তির ঘরের সামনে ডালা সাজিয়ে বসেছেন তাঁরা। ক্রেতারাও যাচ্ছেন অনেকে। টাকা দিয়ে কিনে নিচ্ছেন ডালায় সাজিয়ে রাখা পণ্য। এগুলো গাঁজা। সোজা কথায় মাদক দ্রব্য।

প্রকাশ্যে ডালা গাজা সাজিয়ে এভাবে মাদক দ্রব্য বিক্রির রমরমা ব্যবসা চলছে রাজধানীর তেজগাঁও থানা এলাকার রেললাইন সংলগ্ন একটি বস্তিতে।
দূর থেকে মনে হবে, এটা কোনো সাধারণ হাট-বাজার। সাধারণ মানুষের নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস বিক্রি করছেন তাঁরা। কাছে ভিড়লেও অনেকে টের পাবেন না। কেবল মাদকসেবী ক্রেতাদের কাছেই এর মাহাত্ম্য জানা।

1সোমবার বিকেলে ওই এলাকায় গেলে মাদক দ্রব্য বেচাকেনার এ দৃশ্য চোখে পড়ে। একটি ঘরের সামনে ডালাভর্তি গাঁজা নিয়ে লোকজনকে ডাকছিলেন এক নারী। পাশে তাঁর শিশু সন্তান। জানতে চাইলে ওই নারী বলেন, ‘আগে গার্মেন্টসে চাকরি করতাম। যা পাই পোষায় না। তাই গাঁজা বিক্রি করি।’ ছবি তুলতে গেলে এ নারী ডালা ঘরের ভেতরে ঢুকিয়ে ফেলেন। বলেন, ‘এমনি দেখেন, ছবি তুইলেন না।’

ওই ঘরের পাশে ডালা সাজিয়ে গাঁজা বিক্রি করছিলেন তিন-চারজন নারী। পাশে এক ব্যক্তি। কাছে গেলে তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন, ‘সাংবাদিক? ছবি তুইলা কোনো লাভ নাই। থানা-পুলিশ ম্যানেজ করা আছে।’
এ পেশায় কেন—জানতে চাইলে ওই ব্যক্তি বলেন, ‘আপনি আমারে চাকরি দিলে পাঁচ হাজার টাকার বেশি বেতন দিতে পারবেন না। কিন্তু আমি গাজা বেইচা মাসে ম্যালা টাকা কামাই।’

এখানেও ছবি তুলতে গেলে এক নারী তেড়ে এসে বলেন, ‘খবরদার ছবি তুলবেন না। এখান থেকে চলে যান। সবাই মিলে ধরলে বাঁচতে পারবেন না।’ কয়েকজনের নাম পরিচয় জানতে চাইলে এক নারী ক্ষুব্ধ কণ্ঠে বলেন, ‘কী করবেন। পেপারে ছাপাইবেন। যান, ছাপান। কেউ কিছু করতে পারবে না।’
স্থানীয় কয়েকজন দোকানদার বলেন, এ এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা চলছে। তবে কিছুদিন থেকে এভাবে ডালা সাজিয়ে প্রকাশ্যে মাদক দ্রব্য বিক্রি শুরু হয়েছে। মনে হচ্ছে, কয়েক দিন পর মাদক ব্যবসায়ীরা দোকান খুলে বসবেন।
এভাবে ডালা সাজিয়ে মাদক বিক্রির বিষয়ে তেজগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল ইসলাম বলেন, ‘কী বলেন! এভাবে মাদক বিক্রি হচ্ছে!’

ওসি বলেন, ‘আমরা এ মাদক দ্রব্যের ব্যবসা বন্ধ করার সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। গত এক মাসে মাদক দ্রব্য বিক্রির দায়ে ১৯৫ জনকে সাজা দেওয়া হয়েছে। অর্ধ শতাধিক মামলাও হয়েছে।
ওসি বলেন, ‘আমরা এখন সাধারণ পোশাকে টহল দিতে পারি না। পুলিশ গেলে সবাই সবকিছু লুকিয়ে ফেলে। আমি এক্ষুণি পুলিশের একটি দল পাঠাচ্ছি। প্রথম আলো’

 

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.