সংবাদ শিরোনাম
হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে হামলা ও লুটপাঠের ঘটনায় দাঙ্গাবাজ কনর মিয়া ও কবির মিয়ার ২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড  » «   ওসমানীনগরে হামলা চালিয়ে প্রবাসীর বসতঘর দখলের অভিযোগ  » «   দোয়ারাবাজারে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে সংঘর্ষ, আহত ৬  » «   সিলেটের ওসমানীনগরে চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার, আটক ১  » «   দেশে আধুনিক ক্রীড়ার রূপকার ছিলেন শহীদ শেখ কামাল: প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী  » «   দক্ষিণ সুরমায় মেয়েকে ফিরে পেতে এক পিতার আকুতি  » «   বানারীপাড়ায় সাজাপ্রাপ্ত পলাতক দূর্দান্ত প্রতারক রঞ্জন গ্রেফতার  » «   দক্ষিন সুরমার সুলতানপুর-গহরপুর সড়কে দুর্ঘটনায় নিহত ৩  » «   সাংবাদিক অজয় পালের প্রতিকৃতিতে সিলেটের সর্বস্থরের নাগরিকদের শ্রদ্ধা নিবেদন  » «   ঐতিহ্যবাহী ‘মাছের মেলা’ শেরপুরে হাজারো মানুষের ঢল  » «   দক্ষিণ সুমরার বাইপাস এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় দুইজন নিহত  » «   আমাদের দেশের শিক্ষার্থীরা আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন হয়ে গড়ে উঠছে: মন্ত্রী ইমরান  » «   আওয়ামীলীগের বিদায় নিশ্চিত করে দেশে জনগণের সরকার প্রতিষ্টা করতে হবে :কাইয়ুম চৌধুরী  » «   অবকাঠামো উন্নয়ন এর মাধ্যমে দেশ গড়ার কাজ করতে হবে-প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী ইমরান আহমদ  » «   ছাতকে অধ্যক্ষ অপসারণের দাবীতে সড়ক অবরোধ করেছে ছাত্রলীগ  » «  

জামালগঞ্জে পূজা উদযাপন পরিষদের সম্মেলনে সুবিধাবাদিরা পদপদবী পেতে মরিয়া

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি::আগামীকাল শনিবার বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলা শাখার সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। এ নিয়ে জামালগঞ্জে হিন্দু কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের মধ্যে এক উৎসবের আমেজের পাশাপাশি উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে বলে স্থানীয় একাধিক হিন্দু নেতাদের সাথে আলাপ করে জানা যায়। কেন্দ্রের নির্দেশে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী জেলা কিংবা উপজেলা পর্যায়ে দুই বছর অন্তর অন্তর পূর্ণাঙ্গ কমিটিগুলো গঠন করা হয়ে থাকে। কিন্তু প্রতিটি কমিটিতে যারা স্থানীয়ভাবে হিন্দুদের বিভিন্ন পূজা পর্বণ আচার অনুষ্ঠান কিংবা সাম্প্রদায়িকতা নিয়ে রাজপথে থেকে আন্দোলন সংগ্রাম করে প্রতিবাদ করেন তাদের কমিটিতে স্থান দেওয়া হবে এমনটাই তৃণমূলের প্রকৃত স্থানীয় হিন্দু কমিটির নেতৃবৃন্দরা প্রত্যাশা করেন। কিন্তু তারা আবার শংঙ্কা ও প্রকাশ করেছেন যারা জামালগঞ্জে বহিরাগত হিসেবে অবস্থান করে প্রতিপত্তি ও সম্পদের পাহাড় গড়ে অবৈধ সম্পদের মালিক বনেছেন কিন্তু হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনের সুখ দু:খে কখনো পাশে থেকে রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ করতে দেখা যায়নি। ঐ সমস্ত সুবিধাভোগীরা আগামীকাল শনিবারের জামালগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সম্মেলনে নতুন কমিটির বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে পদপদবী নিতে মরিয়া হয়েও উঠেছেন বলে জানা যায়।

এ ব্যাপারে রামকৃষ্ণ সেবা আশ্রম জামালগঞ্জ উপজেলা শাখার সাধারন সম্পাদক অনন্ত পাল বলেন,হিন্দু সম্প্রদায়ের কমিটিগুলো কার মূলত আমাদের পূজা পর্বণ এবং দাবী আদায়ের জন্য প্রতিবাদি মানুষগুলোকে সংগঠনে অর্ন্তভূক্ত করা দরকার। তিনি বলেন ফেনারবাক ইউপি সচিব অজিত রায় যদিও উনি জামালগঞ্জের স্থায়ী বাসিন্দা না তবে ইদানং জামালগঞ্জের ভোটার ও হয়েছেন। উনি লবিং করছেন শনিবারের জামালগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের কমিটির সাধারন সম্পাদক পদে অর্ন্তভূক্ত হওয়ার জন্য। সাম্প্রতিক সময়ে সাচনা শ্রী শ্রী গোপাল জিউর মন্দির পরিচালনা কমিটির জায়গা নিয়ে দুটি পক্ষের মধ্যে মতবিরোধ নিয়ে তিনি ইতিমধ্যে বিতকিত হয়েছেন এবং উনার বিরুদ্ধে একটি পক্ষ জামালগঞ্জ থানায় জিডিও করেছেন বলে জানান। তিনি মনে করেন আগামী কমিটিতে স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে সর্বজন শ্রদ্ধেয় শৈলেন্দ্র দেবনাথকে সভাপতি ও তরুণ প্রজন্মের উদীয়মান নেতা হিসেবে সৈকত ঘোষ চৌধুরীকে সাধারন সম্পাদক পদে রেখে এই কমিটি গঠন করা হলে এই কমিটিটা একটি পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে রুপান্তিত হবে ।

এ ব্যাপারে সাচনাবাজার বণিক সমিতির সভাপতি ও জামালগঞ্জ নিগমানন্দ সেবা আশ্রমের সাধারন সম্পাদক চিত্তরঞ্জন পাল বলেন আগামীকালের সম্মেলনে কমিটিতে যারা ত্যাগী সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিদের অর্ন্তভূক্ত করে কমিটিরা গঠন করা হলে কমিটির গতি বাড়বে।

এ ব্যাপারে সাচনা গোপাল জিউর মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি বিশ্বজিৎ রায় বলেন,বর্তমান উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারন সম্পাদক ও সহ সম্পাদকের যোগসাজসে সাচনা শ্রী শ্রী গোপাল জিউর মন্দিরের নামে স্থাপিত জায়গা থেকে উচ্ছেদে পরিকল্পনাকারী ছিলেন। তাই আগামী সম্মেলনে ঐ সমস্ত ব্যক্তিদের কমিটিতে অন্তভূক্ত না করতে জেলা নেতৃবৃন্দের প্রতি দাবী জানান।

এ ব্যাপারে সাচনা সার্বজননীন শশ্মান পরিচালনা কমিটির সাধারন সম্পাদক প্রদীপ পুরকায়স্থ বলেন বিগত জামালগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের কমিটিতে বিতর্কিত ব্যক্তিদের বাদ দিয়ে ত্যাগীদের দিয়ে নতুন কমিটি গঠনের দাবী জানান।

এ ব্যাপারে জামালগঞ্জ উপজেলা শ্রী শ্রী জগন্নাথ জিউর মন্দির পরিচালনা কমিটির সাধারন সম্পাদক সুজিত দেব বলেন,সমাজে প্রতিষ্ঠিত ব্যক্তিরা হিন্দু সম্প্রদায়ের কমিটিতে আসলে সবদিকে ভাল হয়। তাইআমাগী কাউন্সিলে ত্যাগি এবং নিবেদিত হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতাদের কমিটিতে স্থান দেয়ার দাবী জানান।

এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারন সম্পাদক বিমল বণিক বলেন, আমরা সাংগঠনিকভাবে দক্ষ ও সৎ মানুষদের কমিটিতে অর্ন্তভূক্ত করা হবে বলে জানান।

এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি এড.বিমান কান্তি রায় জানান,আমাদের গঠনতন্ত্রের মধ্যে উল্লেখ আছে যারা সনাতন ধর্মে পরিচ্ছন্ন নেতা রয়েছেন,যারা হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষজনের দাবী নিয়ে রাস্তা প্রতিবাদি হবেন,মন্দির প্রতিষ্ঠানে যারা দায়িত্বে আছেন সেই সমস্ত ব্যক্তিদের নিয়ে একটি নতুন কমিটি উপহার দেয়ার প্রানান্তর চেষ্টা করবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.