সংবাদ শিরোনাম
শাল্লার হবিবপুর গ্রামে পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু  » «   সিলেটে গণপূর্তের উপ সহকারী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা  » «   কমলগঞ্জের শমসেরনগরে এসএসসি পরীক্ষার্থী ছুরিকাঘাতে আহত  » «   এরাবরাক নদীর উপর সেতু উদ্ধোধন-হবিগঞ্জ ও মৌলভীবাজার জেলার কয়েক লক্ষ মানুষের স্বপ্ন পূরণ হলো  » «   সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে বজ্রপাতে কৃষকের মৃত্যু  » «   ওসমানীনগরের সাজুর লাশ দেশে আসছে রবিবারে  » «   যাদুকাটা নদীতে অবৈধ ড্রেজার মেশিনে বালু উত্তোলন বন্ধে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের নিকট অভিযোগ  » «   মামলার বিচার নিষ্পত্তিতে পুলিশের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ : সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ  » «   জৈন্তাপুরে চারিকাটায় “দি মেঘালয় চা-বাগানের” লীজ বাতিল করে স্থানীয় ভূমিহীনদের মধ্যে বন্দোবস্তের দাবী জানিয়ে মানববন্ধন   » «   জৈন্তাপুরে দীর্ঘ ৩৫ বছর পর প্রশাসনের সহযোগিতায় মসজিদের জায়গার সীমানা নিয়ে বিরোধ নিষ্পত্তি  » «   সিসিক নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন আরিফুল হক চৌধুরী   » «   পর পুরুষের সাথে স্ত্রীর যুক্তরাজ্য যাওয়ার খবরে পর্তুগালে স্বামীর আত্মহত্যা  » «   সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে পাখির বাসা ভাঙতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু  » «   জৈন্তাপুরে সিলেট তামাবিল সড়কের কাটাগাং এলাকায় ভয়াবহ সড়ক দুঘর্টনায় ২জন নিহত, আহত ৩  » «   জৈন্তাপুর মডেল থানা কর্তৃক ১৪৮ পিস ইয়াবা সহ ০১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার”  » «  

আদালতে আটকে আছে বিয়ানীবাজার পৌরসভা নির্বাচন

11সিলেটপোস্ট রিপোর্ট :বিয়ানীবাজার পৌরসভার নির্বাচন সহসাই হচ্ছে না। আদালতের রায়ের জন্য ভোটার ও প্রার্থীদের অপেক্ষা হবে। সুপ্রীম কোর্টের আপীল বিভাগে শুনানীর অপেক্ষায় থাকা একটি রিট আবেদন নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্তই আটকে থাকবে এই পৌরসভার নির্বাচন। এখানেই শেষ নয়, আদালতে চলমান মামলার সাথে নতুন করে যোগ হতে পারে সীমানা সংক্রান্ত আরোও একাধিক মামলা। এমনই আভাস দিয়েছে একাধিক নির্ভরযোগ্য সূত্র। আগামী বছরের জানুয়ারীতে এসব মামলার শুনানী হতে পারে বলে বাদী পক্ষের আইনজীবি জানান।২০০০ সালে তৎকালীন সদর ইউনিয়নসহ আরো কিছু এলাকা নিয়ে বিয়ানীবাজার পৌরসভা ঘোষণা করে সরকার। শুরুতে এটি ‘গ’ শ্রেণীর পৌরসভা হিসেবে ঘোষণা করলেও পরবর্তীতে ২য় গ্রেডে উন্নীত হয়। বর্তমানে এটি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে ১ম শ্রেণীর পৌরসভা হিসেবে ঘোষণার অপেক্ষায় রয়েছে। আর এ দীর্ঘ সময় থেকে দ্বায়িত্ব পালন করছেন বর্তমান পৌর প্রশাসক তফজ্জুল হোসেন। সে হিসেবে ১৬ বছর থেকে ভোটাধিকার বঞ্চিত রয়েছেন পৌর এলাকার প্রায় ৪০ হাজার অধিবাসী।
৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের জন্য ২৩৪ টি পৌরসভার যে তফশিল ঘোষণা করেছে সে তালিকায় বিয়ানীবাজার নেই। সিলেটের জেলা প্রশাসক জয়নাল আবেদীন জানান, আদালতই বিয়ানীবাজার পৌরসভার নির্বাচনের জন্য সঠিক নির্দেশনা দিবেন। কারণ আদালতের নির্দেশেই বিয়ানীবাজার পৌরসভার প্রশাসক দায়িত্ব পালন করছেন।
বিয়ানীবাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহা.আসাদুজ্জামান জানান, আইনি জটিলতায় বিয়ানীবাজার পৌরসভার নির্বাচন আয়োজন করা যাচ্ছে না। সুপ্রীম কোর্টের আপীল বিভাগে বর্তমান পৌর প্রশাসক তফজ্জুল হোসেনের একটি রিট মামলা শুনানীর অপেক্ষায় থাকায় আমরা নির্বাচন অনুষ্ঠানে কোন উদ্যোগ নিতে পারছি না। তিনি আরো জানান, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে বিয়ানীবাজার পৌরসভার নির্বাচন আয়োজনে নির্বাচন কমিশনের কাছে কোন ধরণের আলাদা নির্দেশনা কিংবা পরামর্শ দেয়া হয়নি। মন্ত্রণালয় নির্বাচন অনুষ্ঠানে আমাদের অনুরোধ করলে এটর্নী জেনারেলের কার্যালয়ের সাথে যোগাযোগ করে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করা যেতে পারে বলে তিনি মত দেন।
এদিকে পৌর প্রশাসক তফজ্জুল হোসেনের আইনজীবী এডভোকেট মোস্তাক আহমদ বলেন, সুপ্রীম কোর্টের শুনানীর অপেক্ষায় থাকা কোন মামলার বিষয়ে নির্বাচন কমিশন কিংবা মন্ত্রণালয় কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারে না। আগামী জানুয়ারী মাসে এসব মামলার শুনানী শেষ হতে পারে বলে তিনি জানান।বিয়ানীবাজার উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো: কামাল হোসেন জানান, দেশের যেসব পৌরসভায় আগামী ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন অনুষ্টিত হবে তার মধ্যে বিয়ানীবাজার পৌরসভার নাম নেই। ২০০০ সালে আওয়ামীলীগ সরকারের শেষ সময়ে বিয়ানীবাজার সদর ইউনিয়ন এবং আরও কিছু এলাকা নিয়ে পৌরসভা গঠন করা হয়। পৌরসভার কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য পৌর প্রশাসক পদে নিয়োগ পেতে একাধিক আওয়ামীলীগ নেতা তদবির শুরু করেন। আওয়ামীলীগ নেতাদের মধ্যে শুরু হয় স্নায়ুযুদ্ধ। অভ্যন্তরীণ কোন্দল মেটাতে সে সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে পৌর প্রশাসকের দায়িত্ব দেয়া হয়। কিন্তু নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিকে উপেক্ষা করে সরকারী কর্মকর্তাকে প্রশাসক পদে নিয়োগ দেয়া এবং নির্ধারিত সময় পেরিয়ে যাওয়ার আগে অন্য ব্যক্তিকে পৌর কার্যক্রম পরিচালনার বিষয়টি চ্যালেঞ্জ করে উচ্চ আদালতে রীট আবেদন করেন সদর ইউনিয়নের তখনকার চেয়ারম্যান মোঃ তফজ্জুল হোসেন। তার আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত তাকে পৌর প্রশাসক পদে নিয়োগ দেন। এ বিষয়ে পৌর প্রশাসক তফজ্জুল হোসেন জানান, পৌর নির্বাচন হউক সেটি আমিও চাই। তবে যথাযথ প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে নির্বাচন অনুষ্ঠানে তার কোন বাধা নেই বলে জানান তিনি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.