সংবাদ শিরোনাম
মাস খানেক পরই বিদ্যুৎ ঘাটতিসহ সবকিছুই ঠিক হয়ে যাবে-পরিকল্পনা মন্ত্রী মান্নান  » «   ওসমানীনগরে পরিমাপে পেট্রোল কম দেয়ায় সুপ্রীম ও আবীর ফিলিং স্টেশনকে জরিমানা  » «   জগন্নাথপুরে এক কৃষক হত্যা মামলায় ১ জনের আমৃত্যু ও ৫ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড  » «   সিলেটের ওসমানীনগরে মা-মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ  » «   জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির অযৌক্তিক সিদ্বান্ত-বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল  » «   দেশের সংকট নিরসনের জন্য আওয়ামীলীগকে বিতাড়িত করার বিকল্প নেই :খন্দকার মুক্তাদির  » «   চুনারুঘাটে ছেলের হাতে মা খুন,ছেলে আটক  » «   জৈন্তাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২  » «   দোয়ারাবাজারে ভারতীয় মালামালসহ আটক ২   » «   ওসমানীনগর থানার ওসি অথর্ব ও দুর্নীতিবাজ-মোকাব্বির খান এমপি  » «   ভোলায় পুলিশী ন্যাক্কারজনক ঘটনায় সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল  » «   সিলেটে ঘুষ ছাড়া সহজে কারো পাসপোর্ট হয়না: ব্যবস্থা নিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর চিঠি  » «   সুনামগঞ্জে জেলা বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের বাধা  » «   জামালগঞ্জে জামায়াতের আমীর দেশীয় আগ্নেয়াস্ত্র জিহাদি বইসহ ২জন আটক-মামলা  » «   সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুরে পুকুরে ডুবে দুই বোনের মৃত্যু  » «  

‘হিটলিস্টের’ ৮৪ জনের ঠিকানা পাচ্ছে না পুলিশ

0015সিলেটপোস্ট ডেস্ক ॥   ব্লগার ও বিজ্ঞান লেখক অনন্ত বিজয় দাস হত্যাকাণ্ডের পর আতঙ্ক জেঁকে বসেছে সিলেটের প্রগতিশীল লেখক, সংস্কৃতিকর্মী ও ব্লগারদের মধ্যে। এ অবস্থায় প্রগতিশীল এবং মুক্তমনা লেখক ও সংস্কৃতিকর্মীরা পুলিশ প্রশাসনের কাছে নিজেদের নিরাপত্তা দাবি করেছেন। তবে পুলিশ বলছে ‘হিটলিস্টে’ থাকা ৮৪ জনের কারোরই পূর্ণাঙ্গ ঠিকানা বা পরিচয় না থাকায় এ ব্যাপারে তারা কিছুই করতে পারছে না।

আর এসব জঙ্গি তত্পরতা রুখতে আলাদা ট্রাইব্যুনাল গঠনের পরামর্শ দিচ্ছেন আইনজীবীরা। এদিকে ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল সকালের খবরকে বলেন, জঙ্গিগোষ্ঠীর হিটলিস্টে থাকা সবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করা উচিত সরকারের।

গত মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮টায় সিলেট নগরীর সুবিদবাজারের নূরানী আবসিক এলাকায় নিজ বাসা থেকে মাত্র দেড়শ’ গজ দূরে মুখোশধারী চার দুর্বৃত্তের ধারাল অস্ত্রের আঘাতে খুন হন ব্লগার, বিজ্ঞান লেখক ও ব্যাংক কর্মকর্তা অনন্ত বিজয় দাস। এ ঘটনার পরপরই ফের আলোচনায় আসে বিভিন্ন সামাজিক ও গণমাধ্যমে জঙ্গিদের প্রকাশিত ‘হিটলিস্ট’।

‘হিটলিস্টে’ নাম থাকা ৮৪ জনের একজন নিহত অনন্ত বিজয় দাস-এ বিষয়টিও জানত না পুলিশ। এই হত্যাকাণ্ডের পর অজানা আতঙ্কে রয়েছেন সিলেটের মুক্তমনা প্রগতিশীল লেখক, সংস্কৃতিকর্মী ও ব্লগাররা।

এ ব্যাপারে সিলেটের সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের মুখপাত্র রজতকান্তি গুপ্ত বলেন, আমরা যারা মুক্তবুদ্ধির ও মুক্তচিন্তার চর্চা করি তারা আজ নিরাপত্তাহীন। আমাদের পরিবার-পরিজন উত্কণ্ঠিত।  স্ত্রী-সন্তানও আতঙ্কে রয়েছেন।

জঙ্গিদের ‘হিটলিস্টে’ যাদের নাম রয়েছে, তাদের নিরাপত্তা প্রদানের দায়িত্ব সরকারের। অন্যথায় জঙ্গিগোষ্ঠীর অপতত্পরতার কারণে মুক্তবুদ্ধি ও মুক্তচিন্তার মানুষ হারিয়ে যাবে। তবে আমাদের যতক্ষণ নিঃশ্বাস থাকবে ততক্ষণ মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলব, মুক্তবুদ্ধি ও মুক্তচিন্তার নাটক নিয়ে আমাদের সংগ্রাম চালিয়ে যাব।

এদিকে অনন্ত বিজয় দাস হত্যার দু’দিন পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত অপরাধীদের শনাক্ত কিংবা চিহ্নিত করতে পারেনি পুলিশ। এ কারণেই আতঙ্কের মাত্রা বাড়ছে দিন দিন। সব হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদ, জঙ্গিদের চিহ্নিত ও নির্মূলের দাবিতে আজ বিকেলে নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সংহতি সমাবেশ আহ্বান করেছে গণজাগরণ মঞ্চ, সিলেট।

এ ব্যাপারে গণজাগরণ মঞ্চ সিলেটের মুখপাত্র দেবাশীষ দেবু বলেন, সংহতি সমাবেশ থেকে গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠন ব্লগার অনন্ত বিজয় দাস হত্যার প্রতিবাদের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

চলতি বছর মুক্তমনা ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা অভিজিত্ রায় ও ব্লগার ওয়াশিকুর বাবুর পর একই কায়দায় খুন হলেন ব্লগার ও বিজ্ঞান লেখক অনন্ত বিজয় দাস। হত্যাকাণ্ডের পরপরই টুইট বার্তায় আনসার বাংলা-৮ নামে একটি আইডি থেকে হত্যার দায় স্বীকার করে উল্লেখ করা হয়, আল-কায়েদার ভারতীয় উপমহাদেশ শাখা এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। ধারাবাহিক এসব হত্যা ও দায় স্বীকার বার্তায় শঙ্কিত প্রগতিশীল ও মুক্তমনা লেখকরা। জীবনের নিরাপত্তায় তারা চাইছেন পুলিশের সহায়তা।

এ বিষয়ে জনপ্রিয় লেখক ও শিক্ষক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল এ প্রতিবেদককে বলেন, বিভিন্ন মাধ্যমে জঙ্গিগোষ্ঠীর হিটলিস্টের খবর পাওয়া গেছে। সরকারের উচিত এই লিস্টে যাদের নাম রয়েছে তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা। তিনি বলেন, প্রত্যেকের স্বাভাবিক মৃত্যুর অধিকার রয়েছে। যারা মুক্তবুদ্ধি কিংবা মুক্তচিন্তার চর্চা করছেন তাদের নৃশংসভাবে হত্যা করা হচ্ছে। এটা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পরিপন্থী।

এদিকে জঙ্গিগোষ্ঠীর এ ধরনের নৃশংসতা রুখতে দেশের প্রচলিত আইন যথেষ্ট উল্লেখ করলে সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এএফএম রুহুল আনাম চৌধুরী মিন্টু বলেন, জঙ্গিগোষ্ঠীর এ তত্পরতা রুখতে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। মুক্তবুদ্ধি ও মুক্তচিন্তার মানুষ হত্যাকারীদের আলাদা ট্রাইব্যুনাল গঠন করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে পারলে জঙ্গি তত্পরতা অনেকটা কমে আসবে।

এ ব্যাপারে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার মুহাম্মদ রহমতউল্লাহ বলেন, অনন্ত বিজয় দাস হত্যার পর দু’দিন পেরিয়ে গেছে। অপরাধীদের আটক করতে জোর তত্পরতা অব্যাহত আছে। ব্লগার ও লেখকদের নিরাপত্তা প্রসঙ্গে তিনি জানান, ‘হিটলিস্ট’-এ উল্লিখিত ৮৪ জনের কারোই পূর্ণাঙ্গ পরিচয় না থাকায় তারা বিপাকে পড়েছেন। তবে কেউ নিরাপত্তা চাইলে পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করারও অনুরোধ জানান তিনি।

সকালের খবর

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.