সংবাদ শিরোনাম
এডিশন্যাল ডি আই জি কে জেলা শ্রমিক ঐক্য পরিষদের বিদায় সংবর্ধনা ও ক্রেষ্ট প্রদান  » «   আউশকান্দি কলেজিয়েট স্কুলে বখাটেদের উৎপাত বেড়ে গেছে!ছাত্রী ও অভিভাবকরা আতংকিত  » «   সুনামগঞ্জ জেলা ও দিরাই উপজেলা শিক্ষা অফিসারের বিরুদ্ধে দুদকে ঘুষ-দূর্নীতি ও অর্থ কেলেংকারীর অভিযোগ   » «   মাস খানেক পরই বিদ্যুৎ ঘাটতিসহ সবকিছুই ঠিক হয়ে যাবে-পরিকল্পনা মন্ত্রী মান্নান  » «   ওসমানীনগরে পরিমাপে পেট্রোল কম দেয়ায় সুপ্রীম ও আবীর ফিলিং স্টেশনকে জরিমানা  » «   জগন্নাথপুরে এক কৃষক হত্যা মামলায় ১ জনের আমৃত্যু ও ৫ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড  » «   সিলেটের ওসমানীনগরে মা-মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ  » «   জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির অযৌক্তিক সিদ্বান্ত-বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল  » «   দেশের সংকট নিরসনের জন্য আওয়ামীলীগকে বিতাড়িত করার বিকল্প নেই :খন্দকার মুক্তাদির  » «   চুনারুঘাটে ছেলের হাতে মা খুন,ছেলে আটক  » «   জৈন্তাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২  » «   দোয়ারাবাজারে ভারতীয় মালামালসহ আটক ২   » «   ওসমানীনগর থানার ওসি অথর্ব ও দুর্নীতিবাজ-মোকাব্বির খান এমপি  » «   ভোলায় পুলিশী ন্যাক্কারজনক ঘটনায় সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল  » «   সিলেটে ঘুষ ছাড়া সহজে কারো পাসপোর্ট হয়না: ব্যবস্থা নিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর চিঠি  » «  

নিয়ম ভঙ্গকরে ফ্ল্যাট ব্যবহার করছে ৪ মন্ত্রী

81সিলেট পোষ্ট রিপোর্ট : সংসদ সদস্য ভবনের (ন্যাম ফ্ল্যাট) ফ্ল্যাট ছাড়তে বারবার তাগাদা দেয়া সত্ত্বেও তা আমলে নেননি চার মন্ত্রী। তারা হলেন- তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী ছায়েদুল হক এবং ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ। তাদের ফ্ল্যাট ছাড়ার জন্য আবারও চিঠি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংসদ কমিটি। এ চার মন্ত্রীকে সর্বশেষ ৬ মে ফ্ল্যাট ছাড়ার চিঠি দেয়া হয়েছিল।

কমিটির দাবি, মন্ত্রী হওয়ার পরও সরকারি নিয়ম ভঙ্গ করে হাসানুল হক ইনু নাখালপাড়া ১ নম্বর ভবনের ১০৪ নম্বর ফ্ল্যাট, শাজাহান খান মানিক মিয়া এভিনিউয়ের ৪ নম্বর ভবনের ৪০৪ নম্বর ফ্ল্যাট, ছায়েদুল হক একই ভবনের ১০২ নম্বর ফ্ল্যাট এবং শামসুর রহমান শরীফ ৪০৩ নম্বর ফ্ল্যাট এখনও তাদের দখলে রেখেছেন। খবর দৈনিক যুগান্তর।গত বছরের ৯ ফেব্রুয়ারি মানিক মিয়া এভিনিউ ও নাখালপাড়ার সংসদ সদস্য ভবনে মন্ত্রীর দায়িত্ব নেয়া সংসদ সদস্যদের ফ্ল্যাট বরাদ্দ না দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় সংসদ কমিটি।

সে অনুযায়ী নবম সংসদে ফ্ল্যাট বরাদ্দ পাওয়া সাতজনকে (যারা দশম সংসদ নির্বাচনের পরে মন্ত্রীর দায়িত্ব পান) ছেড়ে দিতে একাধিকবার তাগাদা দেয় তারা। ওই বছরের ১৬ ফেব্র“য়ারি সিদ্ধান্ত নেয়া হয়- মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী বা উপমন্ত্রীর মর্যাদাসম্পন্ন কোনো সংসদ সদস্য যদি ন্যামফ্ল্যাটে থাকতে আগ্রহ প্রকাশ করেন তবে তাকে সরকার থেকে পাওয়া বাড়িভাড়া ও সার্ভিস চার্জ ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে সংসদ সচিবালয়ে জমা দিতে হবে।

সংসদ কমিটির এ সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে ফ্ল্যাট ছাড়েননি চার মন্ত্রী। বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সংসদ কমিটির বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনার পর তাদের আবারও ফ্ল্যাট ছাড়তে চিঠি দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

কমিটির সভাপতি চিফ হুইপ আসম ফিরোজ বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। কমিটির সদস্য তাজুল ইসলাম চৌধুরী, উপাধ্যক্ষ আবদুস শহীদ, মাহবুব আরা বেগম গিনি, পঞ্চানন বিশ্বাস, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, আসলামুল হক এবং নাজমুল হক প্রধান এ সময় উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে আসম ফিরোজ বলেন, আমরা আবারও চিঠি দিতে বলেছি। প্রত্যেকেরই কিছু না কিছু সমস্যা আছে। কারও এখনও বাসায় মালপত্র আছে। কারও ফ্যামিলি মেম্বার বেশি। কমিটি আবারও তাগিদ দিয়েছে। তিনি আরও বলেন, যদি কারও আসলেই ফ্ল্যাট প্রয়োজন হয় তবে তারা স্পিকারের স্পেশাল পারমিশন নিতে পারেন।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.