সংবাদ শিরোনাম
দোয়ারাবাজারে মাদক সেবনের দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ৪ জনের সাজা  » «   বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে তরুণীর অনশন  » «   দোয়ারাবাজারে কেন্দ্র ফি’র নামে এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায়  » «   তাহিরপুরে বিদ্যালয়ের আয়-ব্যয়ের হিসাব দিতে প্রধান শিক্ষকের টালবাহানা   » «   দোয়ারাবাজারে সরকারি ভাতা দেওয়ার নামে প্রতারণা, প্রতারককে জরিমানা  » «   মৌলভীবাজারের জুড়িতে ২ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামিসহ দুইজন গ্রেফতার  » «   দোয়ারাবাজারে বিদেশী মদের চালানসহ মাদক কারবারি আটক  » «   সুনামগঞ্জের তিন উপজেলার ১৫টি স্পটে চলছে সহশ্রাধিক অবৈধ ক্রাশার মেশিনের তান্ডব  » «   সুনামগঞ্জে পিতা ও কন্যার উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের  » «   সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে স্কুল ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার  » «   সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে অজ্ঞাত বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার  » «   নবীগঞ্জে যুদ্বাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ফিরোজ মিয়া আমাদের মধ্যে আর নেই! রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাপন  » «   জুড়ীতে ফেনসিডিল ও ইয়াবাসহ আটক ১  » «   ছাতকে আবুল হোসেনকে পরিকল্পিত হত্যা নাকি অন্য কারণ?প্রকৃত অপরাধীদের আড়াল করার অপচেষ্টা   » «   দোয়ারাবাজারে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক বরখাস্ত   » «  

রাজধানী মিরপুরে ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় শিক্ষকের যাবজ্জীবন

jasসিলেটপোস্টরিপোর্ট:রাজধানী মিরপুরের হলিক্রিসেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্লে শ্রেণীর এক ছাত্রী (৫) ধর্ষণের মামলায় ওই স্কুলের আরবি শিক্ষক মো. মিনহাজ উদ্দিনকে (২৫) যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। একইসঙ্গে তাকে দুই লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দেয়া হয়েছে। এ দুই লাখ টাকার মধ্যে এক লাখ টাকা ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে দিতে আদেশ দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল।মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা ৫ নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক তানজীনা ইসমাইল এ রায় দেন।২০১৪ সালের ১১ মার্চ ওই ছাত্রীকে চকলেটের লোভ দেখিয়ে স্কুলের বাথরুমে নিয়ে ধর্ষণ করেন লম্পট শিক্ষক। এ সময় রক্তক্ষরণ শুরু হলে তিনি পালিয়ে যান। ওই ছাত্রী বাসায় গিয়ে অসুস্থ হয়ে পরে এবং তার মাকে সব খুলে বলে। তাকে দ্রুত ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।এরপর ওই দিনই ওই ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে লম্পট শিক্ষকের বিরুদ্ধে মিরপুর থানায় ধর্ষণ ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। ওই দিনই আসামিকে আটক করে পুলিশ।ঘটনাটি তদন্ত করে মিরপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মতিউর রহমান গত বছরের ২৬ জুন ওই শিক্ষককে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। একই বছরের ২৯ অক্টোবর আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন ট্যাইব্যুনাল।ভিকটিম নিজেই আদালতে সাক্ষ্য দেন। এছাড়া ভিকটিমের মা, বাবা, মামা, নানীসহ ৯ জন সাক্ষ্য দেন। রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন সংশ্লিষ্ট ট্রাইব্যুনালের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) আলী আসগর তপন।এছাড়া বাদিকে আইনী সহায়তা দেন বাংলাদেশ মহিলা আইনজীবী সমিতির পক্ষে অ্যাডভোকেট সালমা আলী, ফাহমিদা আক্তার রিংকী ও ফারহানা রহমান লুনা।রায় পড়ার সময় আসামি মিনহাজ উদ্দিন আদালতে উপস্থিত ছিলেন। এরপর তাকে আবার কারাগারে পাঠানো হয়।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.