সংবাদ শিরোনাম
মাস খানেক পরই বিদ্যুৎ ঘাটতিসহ সবকিছুই ঠিক হয়ে যাবে-পরিকল্পনা মন্ত্রী মান্নান  » «   ওসমানীনগরে পরিমাপে পেট্রোল কম দেয়ায় সুপ্রীম ও আবীর ফিলিং স্টেশনকে জরিমানা  » «   জগন্নাথপুরে এক কৃষক হত্যা মামলায় ১ জনের আমৃত্যু ও ৫ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড  » «   সিলেটের ওসমানীনগরে মা-মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ  » «   জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির অযৌক্তিক সিদ্বান্ত-বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল  » «   দেশের সংকট নিরসনের জন্য আওয়ামীলীগকে বিতাড়িত করার বিকল্প নেই :খন্দকার মুক্তাদির  » «   চুনারুঘাটে ছেলের হাতে মা খুন,ছেলে আটক  » «   জৈন্তাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২  » «   দোয়ারাবাজারে ভারতীয় মালামালসহ আটক ২   » «   ওসমানীনগর থানার ওসি অথর্ব ও দুর্নীতিবাজ-মোকাব্বির খান এমপি  » «   ভোলায় পুলিশী ন্যাক্কারজনক ঘটনায় সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল  » «   সিলেটে ঘুষ ছাড়া সহজে কারো পাসপোর্ট হয়না: ব্যবস্থা নিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর চিঠি  » «   সুনামগঞ্জে জেলা বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের বাধা  » «   জামালগঞ্জে জামায়াতের আমীর দেশীয় আগ্নেয়াস্ত্র জিহাদি বইসহ ২জন আটক-মামলা  » «   সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুরে পুকুরে ডুবে দুই বোনের মৃত্যু  » «  

সিলেট বিএনপিতে পূরণ হয়নি ইলিয়াসের শূণ্যতা:নিখোঁজের ৪৩ মাস

14সিলেটপোস্টরিপোর্ট:সিলেট বিএনপি আর আগের অবস্থানে নেই। নিখোঁজ বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলীর সাথেও যেনো হারিয়ে গেছে সিলেটে বিএনপির অবস্থান। একসময় সিলেটের রাজপথে জোরালো অবস্থান ছিল বিএনপির।বিএনপির জোরালো অবস্থানের কাছে অন্যদলগুলো যেনো অসহায় ছিল। বিএনপিকে সমীহ করেই রাজপথে নামতে হতো অন্যদলগুলোকে। এখন সিলেটে খেই হারিয়ে ফেলেছে দেশের অন্যতম এই রাজনৈতিক সংগঠনটি। আর এসবের মূলে রয়েছেন নিখোঁজ বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলী। তার শূণ্যতার কারণেই সিলেটের রাজপথে দলটির অবস্থান নেমে গেছে নিচের সারিতে।সাবেক সংসদ সদস্য ইলিয়াস আলী ‘নিখোঁজ’র ৩ বছর ৭ মাস বা ৪৩ মাস পূর্ণ হচ্ছে আজ মঙ্গলবার। এই সাড়ে তিনবছর ইলিয়াসের সাথে ‘নিখোঁজ’ ছিল সিলেট বিএনপির প্রাণশক্তিও। ইলিয়াসের শূণ্যতায় ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি দলটি। উল্টো দিন দিন দলে বেড়েছে মতপার্থক্য, রেষারেষি।ইলিয়াসহীন জেলা ও মহানগর শাখার নতুন কমিটি ঘোষণা করেও নেতাকর্মীদের রাজপথে সক্রিয় করতে পারেনি কেন্দ্রিয় কমিটি। সিলেটে যেন কোনভাবেই সম্ভব হচ্ছে না ইলিয়াস আলীর নেতৃত্বের শূণ্যতা পূরণ।২০০৯ সালে বিএনপির কেন্দ্রীয় কাউন্সিলে সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হন এম. ইলিয়াস আলী। দায়িত্ব পান সিলেট বিভাগে দল পুনর্গঠনের। তার নেতৃত্বে সিলেটে ঐক্যবদ্ধভাবে শুরু হয় সরকার বিরোধী আন্দোলন। টিপাইমুখবাঁধ বিরোধী আন্দোলন নিয়ে তিনি ঘুরে বেড়ান পুরো সিলেট বিভাগ। পাশাপাশি সীমান্তে ভারতীয় আগ্রাসনের বিরুদ্ধেও তিনি সিলেটে গড়ে তোলেন আন্দোলন। করেন লংমার্চও।সিলেটে ইলিয়াস আলীর নেতৃত্বে যখন সরকার বিরোধী আন্দোলন তুঙে তখন ২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল ঢাকা থেকে গাড়ি চালক আনসার আলীসহ নিখোঁজ হন তিনি। এরপর ইলিয়াস আলীর সন্ধান দাবিতে সিলেটে কয়েকদিন চলে আন্দোলন। তবে ধীরে ধীরে এই আন্দোলনে পড়তে থাকে ভাটা।একসময় দলীয় কোন্দলে জর্জরিত হয়ে রাজপথে নামার শক্তিও হারিয়ে ফেলে বিএনপি। ইলিয়াস আলী নিখোঁজের পর সিলেট বিএনপিকে গোছানোর দায়িত্ব পান একাধিক কেন্দ্রীয় নেতা। কিন্তু কেউই ইলিয়াসের শূণ্যতা পূরণ করতে পারেননি। উল্টো সৃষ্টি হয় নতুন নতুন বলয়।৫ জানুয়ারির নির্বাচন পরবর্তী আন্দোলন-সংগ্রামেও সিলেট বিএনপিকে মাঠে ঐক্যবদ্ধভাবে দেখা যায়নি। পাশাপাশি সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির শীর্ষ নেতারা বেশিরভাগই ছিলেন আত্মগোপনে।আন্দোলনের শুরুতে তৃণমূল নেতাকর্মীরা রাজপথে সক্রিয় থাকলেও নেতাদের পিছুটানের কারণে একপর্যায়ে তারাও নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়েন। আন্দোলন করতে গিয়ে রাজপথের ত্যাগী নেতাকর্মীরা ইলিয়াসের মতো ইস্পাত কঠিন নেতৃত্বের অভাববোধ করেন।এ ব্যাপারে সিলেট জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট আবদুল গফ্ফার বলেন- চলমান আন্দোলন কর্মসূচিতে নেতাকর্মীরা ইলিয়াস আলীর অভাব অনুভব করছেন। তার বিচক্ষণ নেতৃত্ব সবসময় নেতাকর্মীদের উজ্জীবিত রাখত। তার এ শূণ্যতা সিলেটের অন্য কোন নেতা পূরণ করতে পারেননি।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.