সংবাদ শিরোনাম
সিলেটের ওসমানীনগরে মা-মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ  » «   জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির অযৌক্তিক সিদ্বান্ত-বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল  » «   দেশের সংকট নিরসনের জন্য আওয়ামীলীগকে বিতাড়িত করার বিকল্প নেই :খন্দকার মুক্তাদির  » «   চুনারুঘাটে ছেলের হাতে মা খুন,ছেলে আটক  » «   জৈন্তাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২  » «   দোয়ারাবাজারে ভারতীয় মালামালসহ আটক ২   » «   ওসমানীনগর থানার ওসি অথর্ব ও দুর্নীতিবাজ-মোকাব্বির খান এমপি  » «   ভোলায় পুলিশী ন্যাক্কারজনক ঘটনায় সিলেটে যুবদলের বিক্ষোভ মিছিল  » «   সিলেটে ঘুষ ছাড়া সহজে কারো পাসপোর্ট হয়না: ব্যবস্থা নিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর চিঠি  » «   সুনামগঞ্জে জেলা বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের বাধা  » «   জামালগঞ্জে জামায়াতের আমীর দেশীয় আগ্নেয়াস্ত্র জিহাদি বইসহ ২জন আটক-মামলা  » «   সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুরে পুকুরে ডুবে দুই বোনের মৃত্যু  » «   জৈন্তাপুর সীমান্তের ডিবির হাওর এলাকায় ৪৮ বিজিবি’র মেডিক্যাল ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত  » «   ওসমানীনগরে সাংবাদিকের বাড়িতে কর্মরত যুবকের লাশ ডোবা থেকে উদ্ধার  » «   দোয়ারাবাজারে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু  » «  

সিটি ইয়াবা সার্ভিস’চলছে দামী গাড়ি দিয়ে

carসিলেটপোষ্টরিপোর্ট:মাদক সেবীদের ‘ডোর টু ডোর’ সার্ভিস দিতে প্রতিনিয়ত নিত্যনতুন ‘বিজনেস প্ল্যান’ করতে হচ্ছে মাদক ব্যবসায়ীদের। এবার তারই অংশ হিসেবে মাদক ব্যবসায়ীরা রাজধানীতে শুরু করেছেন ‘সিটি ইয়াবা সার্ভিস’। এজন্য তারা ব্যবহার করছেন বিলাস বহুল প্রাইভেট কার। নির্দিষ্ট নম্বরে শুধু একটি ফোন করলেই গাড়ি পৌঁছে যাবে ক্রেতার দোরগড়ায়। গাড়ির ভেতর এসির ঠান্ডা বাতাসে নগদ টাকায় হাতবদল হবে ইয়াবা।শুধু খুচরা নয় পাইকারীভাবেও ইয়াবা বেচাকেনা করছে চক্রটি। তবে রাজধানীতে এরকম কতগুলো ‘সিটি ইয়াবা সার্ভিস’ আছে তা জানতে পারেননি সংশ্লিষ্টরা।রাজধানীতে এই সার্ভিস শুরু করেন টেকনাফের ইয়াবা ব্যবসায়ী হাকিম মাঝি ও হোসেন। তাদের দেখাদেখি পরে অন্য অনেক মাদক ব্যবসায়ীও এভাবে মাদক বিক্রি শুর করেন। তারা এটির নাম দিয়েছেন ‘সিটি ইয়াবা সার্ভিস’।রাজধানীতে হাকিম মাঝি ও হোসেনের অন্যতম ‘এজেন্ট’ রুহুল আমিন। গত সোমবার মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের এক অভিযানে উত্তরা থেকে তাকে আটক করেন অধিদপ্তরের ডেমরা সার্কেলের পরিদর্শক ফজলু হক খান। এসময় তার সাথে সিটি সার্ভিসের গাড়ি চালক হাফিজ এবং মোক্তার নামে একজনকে আটক করে। তাদের কাছ থেকে টয়োটা এলিয়ন ব্রান্ডের একটি গাড়িও উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত গাড়িটি টেকনাফের জনৈক জাফরের নামে রেজিষ্ট্রেশনকৃত।আটকের পর রুহুল আমিন অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের জানান, টেকনাফ থেকে হাকিম মাঝি ও হোসেন নামে দুই ব্যক্তি তার কাছে ইয়াবা সরবরাহ করেন। রুহুল আরা জানান, শুধু ঢাকা নয়, রাজধানীর বাইরে থেকেও ‘পার্টি’ এসে তাদের কাছ থেকে ইয়াবা নিয়ে যায়। তবে তারা কখনো রাজধানীর বাইরে যান না। রাজধানীর ভেতরে প্রাইভেট কারে করে ইয়াবা সরবরাহ করেন। তবে ঢাকার বাইরে থেকে ‘পার্টি’ আসলে তাদের ‘লোক’ রাজধানীর প্রবেশ মুখ থেকে ‘পার্টি’কে রিসিভ করে উত্তরায় নিয়ে আসেন। পরে গাড়িতে বসেই ইয়াবা ও টাকার লেনদেন করেন। মাদক কর্মকর্তাদের মতে, এই চক্রটি মূলত উত্তরা পূর্ব থানার আশপাশেই বেশী তৎপর। এ ক্ষেত্রে থানা পুলিশের যোগসাজশ থাকতে পারে বলে ধারণা করছেন তারা। এদিকে মাদক গায়েন্দা সুত্রে জানা যায়, ইয়াবা, ফেন্সিডিলসহ অন্যন্য মাদকও রাজধানীতে এভাবে মোটর সাইকেল, প্রাইভেট কার, মিনি ট্রাকে করে সরবরাহ করা হচ্ছে মাদকসেবীদের কাছে। মূলত পুলিশের চোখ ফাঁকি দিতেই মাদক ব্যবসায়ীরা মাদক সরবরাহের কাজে এখন দামী গাড়ি ব্যবহার করছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.