সংবাদ শিরোনাম
শান্তিগঞ্জের কান্দিগাঁও গ্রামে বাচ্চাদের ঝগড়া নিয়ে প্রতিপক্ষের লোকজনের হামলায় দুই ছাত্রীসহ ৩জন আহত  » «   বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে শিক্ষার গুনগত মান উন্নয়নে কাজ করছেন প্রধানমন্ত্রী : প্রতিমন্ত্রী শফিক চৌধুরী  » «   রমজান উপলক্ষে জুলকার নায়েন ফাউন্ডেশন দোয়ার বই ও খেজুর বিতরণ  » «   ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানিয়েছেন মানবাধিকার ও অনুসন্ধান কল্যাণ সোসাইটি  » «   মাদানী ইস্যুকে কেন্দ্র করে সুনামগঞ্জের পুলিশ তদন্তকেন্দ্রে হামলা ভাংচুর, আটক ৫; পুলিশের ২৭ রাউন্ড ফাঁকা গুলি  » «   সুনামগঞ্জে ইয়াকুবিয়া দাখিল মাদ্রাসার পুস্তক পাচারের সময় পিকআ্পভ্যান বোঝাই পুস্তক আটক  » «   ভাষার মর্যাদাপূর্ণ ব্যবহার সমাজে শান্তি-শৃংঙ্খলা বজায় রাখে -ইমরান আহমদ এমপি  » «   সুনামগঞ্জে ইয়াকুবিয়া দাখিল মাদ্রাসার পুস্তক পাচারের সময় পিকআ্পভ্যান বোঝাই পুস্তক আটক  » «   পাথর কোয়ারী সচলের বিষয়ে সরকারের বিশেষ বিবেচনাধীন রয়েছে-প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ  » «   জৈন্তাপুরে পৃথক ৩ টি সড়ক দুর্ঘটনায় অন্তত ৭ জন আহত হয়েছেন  » «   জৈন্তাপুরে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের বিরুদ্ধে অভিযান  » «   বালাগঞ্জে অবৈধভাবে বিল সেচ, ধ্বংস হচ্ছে দেশীয় মাছ, কৃষকেরা সংকিত  » «   সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মধ্যে পোশাক বিতরণ করল মানবাধিকার ও অনুসন্ধান কল্যাণ সোসাইটি  » «   নিউইয়র্কে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি প্রবাসী দম্পতি নিহত  » «   মিথ্যা অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হয়ে সহযোগিতার আহবান -ওসি তাজুল ইসলাম (পিপিএম)  » «  

ভারতীয় চাল আমদানি: বঞ্চিত দেশি বোরো চাষিরা

1সিলেটপোস্ট রিপোর্ট : ফসল ভালো হলেও ন্যায্য দাম পাচ্ছে না বোরো ধানের চাষিরা। কষ্টের ফসল নিয়ে তাই হতাশ উত্তরের জনপদ গাইবান্ধার কৃষকেরা। ব্যবসায়ীরা বলছেন, ভারতীয় চালের আমদানি বেড়ে যাওয়াই দাম পড়ে যাওয়ার মুল কারণ। এদিকে সরকারিভাবে ধান চাল সংগ্রহ শুরু হলে ধানের বাজার বাড়বে বলে মনে করছে জেলা খাদ্য বিভাগ।
টাকায় কেনা তেল, সার, পানি আর কৃষকদের শ্রমে ঘামে মাঠে মাঠে এখন সোনালী ধানের হাতছানি। স্বপ্নের ফসলে সোনালী রং ধরলেও বাজারে ন্যায্য দাম না থাকায় কৃষকেরা আতংকের মধ্যে আছেন। ধানের গোছায় কাচি দিলেও স্বস্তিতে নেই তারা। আমনের পর বোরো ধান নিয়ে স্বপ্ন বুনলেও আশাহত কৃষক।
বাজারে ধানের দর পড়ে যাওয়ায় বোরো চাষিদের এখন মাথায় হাত। তাদের দাবি, বর্তমান বাজারে ধান বিক্রি করে লাভ তো দূরের কথা খরচও উঠবে না। ধানের দাম না থাকার জন্য সব ধরনের ভারতীয় চালের ব্যাপক আমদানিকে দায়ী করলেন ধান ব্যবসায়ী মিজানুর রহমান।
তবে খাদ্য বিভাগ বলছে, সরকারীভাবে ধান চাল সংগ্রহ শুরু হলে ধানের বাজার বাড়তে পারে।
গাইবান্ধা জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘যদি আমরা ধান কেনা শুরু করি তাহলে এর পাশাপাশি মিলাররাও কেনা শুরু করবে। তাহলে মিলাররা বাজার থেকে ধান কেনা শুরু করবে। এর ফলে ধানের দাম কিছুটা হলেও বাড়বে।’
কৃষকদের দাবি, এক বিঘা জমিতে বোরো ধান চাষের জন্য এবার খরচ হয়েছে প্রায় ৮ হাজার টাকা। এক বিঘা জমিতে ধান উৎপাদন হয় ১৮ থেকে ২০ মণ।  বর্তমান বাজারে প্রতি মণ ধান চারশ’ টাকা দরে বিক্রি করলে প্রতি বিঘা জমিতে কৃষকের লোকসান দাঁড়ায় প্রায় ৮’শ থেকে ১ হাজার  টাকা।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়াার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by:

.